জলবায়ু পরিবর্তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্ব নেতৃত্বের প্রশংসা ইউএই মন্ত্রীর

জলবায়ু পরিবর্তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্ব নেতৃত্বের প্রশংসা ইউএই মন্ত্রীর

সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশমন্ত্রী ড. আমনা বিনতে আবদুল্লাহ আল দাহাক জলবায়ু পরিবর্তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্ব নেতৃত্বের প্রশংসা করেছেন।

বাংলাদেশের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী ইউএই’র পরিবেশমন্ত্রী ড. আমনা বিনতে আবদুল্লাহ আল দাহাকের সাথে দ্বিপক্ষীয় বৈঠককালে ইউএই’র মন্ত্রী এই প্রশংসা করেন।

আজ বিকেলে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকটি জলবায়ু পরিবর্তন, পরিবেশ এবং টেকসই উন্নয়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা গড়ে তোলার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। আজ রাতে ঢাকায় পরিবেশ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

বৈঠকে পরিবেশমন্ত্রী চৌধুরী এবং মন্ত্রী আল দাহাক জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, বন সংরক্ষণ এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য পরিবেশ রক্ষার লক্ষ্যে মূল্যবান মতামত এবং কৌশল বিনিময় করেন। উভয় পক্ষ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাব কমাতে এবং পরিবেশ সংরক্ষণকে অগ্রাধিকার দিতে টেকসই পদ্ধতি এবং নীতি প্রয়োগের প্রতি দৃঢ় প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

মন্ত্রী চৌধুরী প্যারিস চুক্তি এবং জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন অভীষ্টসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক চুক্তিতে উল্লিখিত পরিবেশগত লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশের সমর্থনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি সামগ্রিক পরিবেশগত উদ্দেশ্য অর্জনে আন্তর্জাতিক অংশীদারিত্ব এবং সহযোগিতার গুরুত্ব তুলে ধরেন। তিনি কপ২৮ থেকে উদ্ভূত ইউএই ঐকমত্য , বাংলাদেশের জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনা এবং মুজিব জলবায়ু সমৃদ্ধি পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য আন্তর্জাতিক এবং দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা ও ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস প্রয়োজন বলে জানান।

মন্ত্রী আল দাহাক জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ এবং বিশ্ব অংশীদারদের সাথে সহযোগিতা করার সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন। তিনি নবায়নযোগ্য শক্তি, সংরক্ষণ প্রয়াস এবং জলবায়ু স্থিতিস্থাপক কৌশলগুলিতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্যোগ এবং বিনিয়োগ তুলে ধরেন।

জ্ঞান বিনিময়, প্রযুক্তিগত সহায়তা এবং যৌথ উদ্যোগের মাধ্যমে সহযোগিতা বাড়ানোর পারস্পরিক সম্মতির মাধ্যমে সভা সমাপ্ত হয়। উভয় মন্ত্রীই পরিবেশ রক্ষায় উভয় দেশের যৌথ দায়িত্বের কথা স্বীকার করেন এবং আঞ্চলিক ও বিশ্বব্যাপী পরিবেশগত কৌশল ও কর্মকা- এগিয়ে নিতে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

আজ এর আগে, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবিতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আহমেদ আলী আল সায়েঘের সাথে ফলপ্রসূ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেছেন।

বৈঠকে উভয় মন্ত্রীই বাণিজ্য ও বিনিয়োগে নতুন করে গুরুত্বারোপের মাধ্যমে দুই ভ্রাতৃপ্রতিম দেশের মধ্যে অংশীদারিত্ব শক্তিশালী করতে সম্মত হন। ২০২৪ সাল বাংলাদেশ-সংযুক্ত আরব আমিরাত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের একটি শুভ বছর, কারণ এটি কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি চিহ্নিত করে।

বাংলাদেশ