ট্রেনের ইঞ্জিনের ছাদে উঠে সেলফি, বিদ্যুৎপৃষ্টে কিশোরের মৃত্যু

ট্রেনের ইঞ্জিনের ছাদে উঠে সেলফি, বিদ্যুৎপৃষ্টে কিশোরের মৃত্যু

সেলফি তোলার জন্য প্রচুর কসরত করে আট থেকে আশি। কখনও কখনও সামান্য একটা সেলফির জন্য কেউ কেউ এমন নেয় ঝুঁকি নেয় যে তাতে মৃত্যু পর্যন্ত হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) এমনই একটি মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল ভারতের তামিলনাড়ুর তিরুনেলভেলিতে। ট্রেনের ইঞ্জিনের ছাদে উঠে সেলফি তুলতে গিয়ে অকালে প্রাণ হারাল ১৫ বছরের এক কিশোর। তার নাম এম গণেশ্বর।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই কিশোর এম গণেশ্বরের বাড়ি তামিলনাড়ুর তিরুনেলভেলি জেলার থালাইউত্থু এলাকায়। তার বাবা মহেশ্বরন তামিলনাড়ু সিভিল সাপ্লাইয়ের একজন কোয়ালিটি ইনস্পেক্টর পদে কর্মরত। বৃহস্পতিবার তিনি কাজে ব্যস্ত ছিলেন। সেই সুযোগে ১৫ বছরের গণেশ্বর তিরুনেলভেলি রেলওয়ে স্টেশনের এসে ৪ নম্বর প্ল্যাটফর্মে থাকা একটি পণ্যবাহী ট্রেনের ইঞ্জিনের ছাদে উঠে পড়ে। তারপর সেখান থেকে সেলফি তোলার চেষ্টা করে। আর এতেই ঘটে যায় বিপত্তি। উপরে থাকা ২৫ হাজার ভোল্টের বৈদ্যুতিক তারে সংস্পর্শে এসে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে পড়ে সে। তারপর নিচে রেললাইনের উপরে ছিটকে পড়ে। বিষয়টি দেখতে পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায় উপস্থিত জনতা। সেখানে পৌঁছনোর পর চিকিৎসকরা ওই কিশোরকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এপ্রসঙ্গে ওই স্টেশন কতৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, বারবার নিষেধ করার সত্ত্বেও কিছু মানুষ ট্রেনের ইঞ্জিন ও কামরা উপরে উঠে সেলফি (selfie) তোলার চেষ্টা করে। ওই কিশোরও সেই চেষ্টাও করেছিল। কিন্তু, ইঞ্জিনের উপরে উঠে দাঁড়ানোর পরেই ইলেকট্রিক তারের সংস্পর্শে এসে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে পড়ে। বর্তমানে তার মৃতদেহ তিরুনেলভেলি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply