ধর্ষণের প্রচার বেশি হলে প্রাদুর্ভাব বাড়ে : প্রধানমন্ত্রী

ধর্ষণের প্রচার বেশি হলে প্রাদুর্ভাব বাড়ে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধর্ষণ সমাজের একটি ব্যাধি। ইদানীং এটি ব্যাপকভাবে বেড়ে গেছে এবং প্রচারও হচ্ছে। যত বেশি প্রচার হয় এর প্রাদুর্ভাব তত বেশি বাড়ে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে ৭০তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ভার্চুয়াল এ অনুষ্ঠানে গণভবনের সঙ্গে বাংলাদেশ লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়গুলো সংযুক্ত ছিল।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আইন সংশোধন করে অধ্যাদেশ জারি করা হয়েছে। এসব ঘটনারোধ করার জন্য ব্যাপক ব্যবস্থা নিতে হবে। এ ব্যাপারে জনসচেতনতাও সৃষ্টি করা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, অন্যায়ের বিচার নিশ্চিতের লক্ষ্যেই কাজ করছে সরকার।

এ সময় জনগণের সেবায় প্রশাসনের নতুন কর্মকর্তাদের নিরলস কাজ করার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেবা নির্বিঘ্ন করতেই সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করতে হবে। একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না। প্রতিটি মানুষকে ঘর তৈরি করে দিয়ে তার একটা ঠিকানা করে দিতে হবে। কোনো মানুষ ঠিকানাবিহীন থাকবে না।

সরকারপ্রধান বলেন, কোনো শিশু পথশিশু হয়ে থাকবে না। প্রত্যেক শিশুরই একটা ঠিকানা হবে। সে যেন পড়ালেখা করে, প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিজেই কর্ম সংস্থান সৃষ্টি করতে পারে সেই ব্যবস্থা আমাদেরই করে দিতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের ভূ-খণ্ড ছোট হলেও মানুষ অনেক বেশি। সে কারণে প্রতিটি গ্রামই যেনো শহরের সুযোগ সুবিধা পায়, গ্রামে বসে যেন নাগরীক সুবিধা পায় সেভাবেই আমরা গ্রামগুলোকে গড়ে তুলতে চাই।

Leave a Reply