শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ইউএস ওপেনের চ্যাম্পিয়ন ডমিনিক

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ইউএস ওপেনের চ্যাম্পিয়ন ডমিনিক

যেমন ফাইনাল হওয়ার কথা ছিল, তেমনই ফাইনালের সাক্ষী থাকল ফ্লাশিং মেডো। যুক্তরাষ্ট্র ওপেনের ফাইনালে চার ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের পর জার্মানির আলেকজান্ডার জেভেরেভকে ২-৬, ৪-৬, ৬-৪, ৬-৩, ৭-৬ (৮/৬) সেটে হারিয়ে প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম জিতলেন অস্ট্রিয়ার ডমিনিক থিয়েম। তাও কিনা প্রথম দুটি সেটে হেরে গিয়েছিলেন এবং পঞ্চম সেটেও পরাজয়ের মুখে দাঁড়িয়েছিলেন অস্ট্রিয়ান তারকা।

প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন থিয়েম। কিন্তু রবিবার রাতে আর্থার অ্যাশ কোর্টে প্রথম দুটি সেটে তা কার্যত মনে হয়নি। চারটি এস এবং ১৬ টি উইনারের সৌজন্যে মাত্র ৩০ মিনিটেই প্রথম সেট জিতে নেন জার্মান তারকা। দ্বিতীয় সেটেও জেভেরেভের দৌড় অব্যাহত থাকে। সপ্তম গেমে দ্বিতীয় সেটের জন্য সার্ভ করেন। তিনটি সেট পয়েন্ট নষ্ট করলেও প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম জয়ের আরও কাছে চলে আসেন জার্মান তারকা।

কিন্তু সেই সেট পয়েন্ট নষ্ট থেকেই খেলার গতিপ্রকৃতি পরিবর্তিত হতে থাকে। জেভেরেভের সেকেন্ডের দ্বিতীয় সার্ভের গতি কমতে শুরু করে। নিজের দুর্বলতা ফোরহ্যান্ডের ক্ষেত্রে ডিফেন্সিভ হয়ে পড়েন। সেখান থেকেই খেলা ধরে নেন থিয়েম। তৃতীয় সেটের জেভেরেভের সার্ভিস ভাঙেন তিনি। তারপর তৃতীয় এবং চতুর্থ সেট জিতে চূড়ান্ত সেটে ম্যাচ নিয়ে যান অস্ট্রিয়ান তারকা।

পঞ্চম সেটেও জেভেরেভের নাগালের মধ্যে চলে এসেছিল প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম। ৫-৩ গেমে এগিয়ে থাকা অবস্থায় সার্ভ করেন। ১৯৯৬ সালে এই নিউ ইয়র্কেই বরিস বেকারের পর দ্বিতীয় জার্মান পুরুষ হিসেবে গ্র্যান্ডস্ল্যাম জয়ের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানে দুর্দান্ত ধৈর্যের পরিচয় দেন থিয়েম। জেভেরেভের সার্ভিস তো ভাঙেনই, ফ্লাশিং মেডোয় ইতিহাস রচনা করেন তিনি। ম্যাচ শেষে থিয়েম বলেন, ‘আজ যদি দু’জন জয়ী হত। আমার মতে আমরা দু’জন (এই জয়ের) যোগ্য।’

একনজরে ফাইনালের কয়েকটি নজরকাড়া তথ্য –

১) ওপেন যুগে এই প্রথমবার কোনও খেলোয়াড় প্রথম দুটি সেটে হেরেও চ্যাম্পিয়ন হলেন।

২) এটাই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র ওপেন ফাইনাল। যা টাইব্রেকে গড়িয়েছে।

৩) তিনটি ফাইনালে হারের পর অবশেষে কেরিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম জিতলেন থিয়েম। এর আগে, চলতি বছরের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন এবং ২০১৮ ও ২০১৯ সালের ফরাসি ওপেনের ফাইনালে উঠেও মেজর জেতার স্বপ্ন অধরা থেকে গিয়েছিল অস্ট্রিয়ার তারকার।

৪) ২০১৪ সালে এই ফ্লাশিং মেডোয় মারিন চিলিচ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর নয়া গ্র্যান্ডস্ল্যাম বিজয়ী পেল পুরুষ টেনিস দুনিয়া।

৫) ২০১৬ সালে স্ট্যান ওয়ারিঙ্কার যুক্তরাষ্ট্র ওপেন জয়ের পর নোভাক জকোভিচ, রাফায়েল নাদাল এবং রজার ফেডেরার ছাড়া প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে গ্র্যান্ডস্ল্যাম জিতলেন থিয়েম।

Leave a Reply