ট্রাম্পের বিপক্ষে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন কার্দাশিয়ানের স্বামী কেনি

ট্রাম্পের বিপক্ষে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন কার্দাশিয়ানের স্বামী কেনি

সামনেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। নভেম্বরেই হবে প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়াই। আর এবার প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়বেন কিম কার্দাশিয়ানের স্বামী ব়্যাপার কেনি ওয়েস্ট। এক টুইট বার্তায় তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন।

কেনি ওয়েস্ট বলেন, এখন সময় এসেছে ঈশ্বরের ওপর বিশ্বাস করেই এখন আমেরিকার সকল প্রতিশ্রুতি রাখতে পারি, ঐক্যের প্রতি দৃষ্টি ঠিক রেখে আমাদের ভবিষ্যত গড়তে হবে।। আমি আসন্ন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী।’

এই টুইটার নিয়ে ইতোমধ্যে হইচই পড়ে গেছে পুরো যুক্তরাষ্ট্রে। কেননা এতে লাইক পড়েছে প্রায় ৬ লাখ ৫৪ হাজার। রিটুইট হয়েছে প্রায় সাড়ে ৩ লাখ। এই টুইট পোস্ট ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে মার্কিনিদের টুইটার দেয়ালে। কেননা কিম কার্দাশিয়ান বিভিন্ন সময় নানা কথা ও আচরণের কারণেই আলোচনার কেন্দ্রে চলে আসেন। তাই বলে তার স্বামী কেনি ওয়েস্ট এমন একটি ঘোষণা দিয়ে দেবেন তা হয়তো কল্পনাও করেননি কেউ।

ঠিক মার্কিন সাম্রাজ্যে বর্ণবাদ আন্দোলন ও বর্ণবৈষম্য সোচ্চার সব শ্রেণীর মার্কিনিরা, সেই সময়ে একজন কৃষ্ণাঙ্গের ব্যক্তির নিকট থেকে এমন ঘোষণা খুব ইতিবাচক ভাবেই নিয়েছে দেশটির জনগণ।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থক হিসাবেই পরিচিত ছিলেন কেনি, কিন্তু আচমকা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আসরে নামার ঘোষণা দিলেন এই তারকা ব়্যাপার। তাও প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাত্র মাস চারেক আগে। বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তাঁর প্রধান বিরোধী,ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বিডেনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী ময়দানে লড়াই করতে হবে কেনি ওয়েস্টকে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে স্বাধীন প্রার্থীদের মনোনয়ন জমার কোনও সময়সীমা অনেক স্টেটেই এখনও বেঁধে দেওয়া হয়নি। এর আগে বহুবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে হোয়াইট হাউসে সাক্ষাত্ করেছেন কেনি ওয়েস্ট ও তাঁর পত্নী কিম কার্দাশিয়ান। ২০১৮ সালে কেনির হোয়াইট হাউস ভ্রমণ নিয়ে কম চর্চা হয়নি। সেই সময় লাল রঙের টুপিতে ‘মেক আমেরিকা গ্রেট এগেন’ স্লোগান সহ ট্রাম্পকে আলিঙ্গনরত কেনির ছবি ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সংবাদমাধ্যমের সামনে কেনি ওয়েস্ট ট্রাম্পের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন ‘এই মানুষটাকে আমি ভালোবাসি’।

Leave a Reply