রাজধানীতে ১৪ হাজারেরও বেশি করোনা রোগী, সর্বাধিক মিরপুরে

রাজধানীতে ১৪ হাজারেরও বেশি করোনা রোগী, সর্বাধিক মিরপুরে

রাজধানী ঢাকায় করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৪ হাজার ৩৪৮ জন শনাক্ত হয়েছে ঢাকায়। এর মধ্যে সর্বাধিক রোগী রয়েছে মিরপুর ও সংলগ্ন এলাকায়। তবে সহ প্রায় সকল এলাকায়ই কিছু না কিছু রোগী রয়েছে বলে জানা গেছে।

গতকাল বুধবার সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) তথ্য অনুযায়ী বিষয়টি জানা গেছে।

রাজধানীর মিরপুর, বংশাল, ধানমন্ডি, চক বাজার, গেন্ডারিয়া, গুলশান, হাজারীবাগ, শাহবাগ, যাত্রাবাড়ী, লালবাগ, মিটফোর্ড, মোহাম্মদপুর, রাজারবাগ, শাখারি বাজার, তেজগাঁও, উত্তরা, ওয়ারি করোনার অন্যতম হটস্পট।

জানা গেছে, রাজধানীর সব থেকে বেশি করোনা ভাইরাস শনাক্ত রোগী ছিল মিরপুরে (১, ২, ৬, ১০, ১১, ১২, ১৩, ১৪, পল্লবী ও পীরেরবাগ) মোট ৬১৪ জন। এরপর মহাখালী ৩৫৬ জন, মুগদায় ২৯৫ জন, যাত্রাবাড়ি ৩১৫ জন, রাজারবাগে মোট ২১৩ জন, মোহাম্মদপুরে ২৮৮ জন, কাকরাইলে শনাক্ত হয়েছেন ২৯৮ জন।

এছাড়া, আদাবরে ৪৬ জন, আঁগারগাওয়ে ৮৫ জন, আজিমপুরে ৬২ জন, বাবু বাজারে ১৬১ জন, বাড্ডায় ১২৯ জন, বনানী ৭৪ জন, বংশালে ৯৯ জন, বাসাবো ৮৯ জন, বসুন্ধরা ৫২ জন, ক্যান্টনম্যান্ট এলাকায় ১৭ জন, চাংখারপুলে ৪৫ জন, চকবাজার ৭৯ জন, ধানমন্ডিতে ১৭২ জন, ইস্কাটন ৫২ জন, ফার্মগেইট ৪৮ জন, গেন্ডারিয়া ১০৯ জন, গ্রীনরোডে ৫০ জন, গুলশান ৯৪ জন, হাজারীবাগ ৮০ জন, জুরাইন ৫৩ জন, কল্যানপুর ৩৮ জন, চক বাজারে ৭৯ জন, কামরাঙ্গীর চর ৫৩ জন, খিলগাঁও ১৫১ জন কোতোয়ালিতে ২৯ জন শনাক্ত হয়েছে।

রাজধানীর লালমাটিয়া ৪০ জন, লালবাগে ১৬৪ জন, মালিবাগে ১৩১ জন, মান্ডায় ৩৯ জন, মানিকনগর ৪৫ জন, মিটফোর্ডে ৪৬ জন, মগবাজার ২০৫ জন, নারিন্দা ৪০ জন, নিউমার্কেট ১৪ জন, নাখালপাড়া ৩৭ জন, পান্থপথে ৩০ জন, পল্টন ৫০ জন, পুরানা পল্টনে ২৭ জন, রামপুরায় ৯৫ জন, রমনায় ৬৫ জন, রাজাবাজার ৩১ জন, শাহজাহানপুরে ৩৯ জন, শাহবাগে ৮৪ জন, শাখারি বাজারে ৩২ জন, শান্তিনগর ৫৪ জন, শ্যামলীতে ৮৪ জন, স্বামীবাগে ৫৭ জন, সুত্রাপুর ৪৮ জন, তেজগাঁও ১৮৪ জন, উত্তরায় ২৩৭ এবং ওয়ারিতে ৯৬ জন করোনা আক্রান্ত রয়েছেন।

এছাড়া রাজধানীর বাইরে ঢাকা জেলায় ৬২৬ জন করোনা রোগী রয়েছেন।

Leave a Reply