দুই বিচারকসহ কয়েকজন কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত

দুই বিচারকসহ কয়েকজন কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত

দেশের অধস্তন আদালতের দুই বিচারক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ ছাড়া আদালতের কমপক্ষে চারজন কর্মচারিও আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে। আজ শনিবার সংশ্লিষ্ট সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে এই খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে।

আক্রান্ত দুই বিচারক হলেন নেত্রকোনার জেলা ও দায়রা জজ মো. শাহজাহান কবির ও মুন্সিগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম রোকেয়া রহমান। গতকাল শুক্রবার (২২ মে) তাঁদের করোনা পরীক্ষার রিপোর্টে কভিড-১৯ পজেটিভ আসে।

শুক্রবার মুন্সিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো আবুল কালাম আজাদ জানান, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের করোনা উপসর্গ পরীক্ষা করার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়। শুক্রবার মহাখালী আইইডিসিআর জানায় তাঁর করোনা পজিটিভ।

আজ শনিবার নেত্রকোনার সিভিল সার্জন মো. তাজুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, জেলা ও দায়রা জজ মো. শাহজাহান কবিরের দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

এই দুইজন ছাড়াও মুন্সিগঞ্জের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নাজির ও একজন অফিস সহকারীও করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। ময়মনসিংহের জজ আদালতের একজন সহকারী সেরেস্তাদার ও নারায়ণগঞ্জের আদালতের একজন জারিকারক আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এরমধ্যে ময়মনসিংহের সহকারী সেরেস্তাদার সুস্থ হয়ে ঢাকাস্থ কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন।

করোনাকালে নিম্ন আদালতের বিচারক ও কর্মচারিদের অবস্থা পর্যবেক্ষণ ও তাদেও সেবার জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে একটি মনিটারিং সেল রয়েছে। ওই সেলের প্রধান সমন্বয়কারী আইন মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব (প্রশাসন) শেখ গোলাম মাহবুব। তিনি দুই বিচারকের করোনায় আক্রান্তের খবরের সত্যতা স্বীকার করেন।

তিনি বলেন, ‘দুই বিচাপক ও আদালতের যে সকল কর্মচারি করোনা আক্রান্ত তাদেও সার্বক্ষনিক খোঁজখবর রাখছেন আইন মন্ত্রী মহোদয় (অ্যাডভোকেট আনিসুল হক) ও আইন সচিব মহোদয় (মো. গোলাম সারওয়ার)। তাঁদের প্রত্যেকের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।’

শেখ গোলাম মাহবুব এও জানান, দুই বিচারক তাঁদের বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

এর আগে সুপ্রিম কোর্টেও বিচারপতি শশাঙ্ক শেখর সরকার করোনা আক্রান্ত হন। তিনি সমি¥িলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানা গেছে।

Leave a Reply