করোনার তথ্য হস্তান্তর করতে অস্বীকার করায় ফ্লোরিডায় প্রধান বিজ্ঞানী বরখাস্ত

করোনার তথ্য হস্তান্তর করতে অস্বীকার করায় ফ্লোরিডায় প্রধান বিজ্ঞানী বরখাস্ত

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার করোনাভাইরাস অনলাইন ডাটাবেস তৈরি করা প্রধান বিজ্ঞানী রেবিকা জোনস দাবি করেছেন,তথ্যের হস্তক্ষেপের বিষয়ে কর্মকর্তাদের সাথে তার মতবিরোধ হয়েছে।এ প্রেক্ষিতে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

সোমবার ফ্লোরিডার স্বাস্থ্য বিভাগ (ডিওএইচ) রেবিকা জোনসকে বরখাস্ত করে।

৫ মে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক পরিচালক পদে থাকা এই বিজ্ঞানীকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেয় ডিওএইচ।

এ কারণে ফ্লোরিডা রাজ্য কর্তৃপক্ষের নিন্দা করেছে কয়েকজন।

তারা দাবি করেছেন যে, রেবিকা জোনসের ড্যাশবোর্ডের মাধ্যমে দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ফ্লোরিডা আবার সচল হতে পারবে( লকডাউনে উঠিয়ে)।

শুক্রবার জোনস ঘোষণা করেন যে, তিনি ডিওএইচ-এ স্থানান্তরিত হয়েছেন। ফ্লোরিডার কভিড-১৯ সংক্রমণ, পরীক্ষা ও মৃত্যুর প্রতিদিনের স্ন্যাপশট সরবরাহকারী কোনও অনলাইন ড্যাশবোর্ডের তদারকি করবেন না তিনি।

শুক্রবার ডিওএইচ এর প্রাক্তন এই বিজ্ঞানী গবেষকদের কাছে প্রেরণ করা ই-মেইলে দাবি করেছেন যে, বরখাস্ত হওয়ার পরে ফ্লোরিডার ডেটাতে ‘একই স্তরের প্রবেশ যোগ্যতা এবং স্বচ্ছতা’ আশা করবেন না তিনি।

গণমাধ্যম সিবিএস-১২ নিউজকে জোনস জানান, তিনি (লকডাউনের পর) ‘পুনরায় সচল করার পরিকল্পনার পক্ষে ‘ড্রামস ম্যানুয়ালি ডেটা’ পরিবর্তন করবেন না। কারণ তাকে তার অবস্থান থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

তবে তিনি কোন ‘ডেটা’র কথা উল্লেখ করেছেন তা অস্পষ্ট।

এদিকে, ফ্লোরিডার গভর্নর রন ডিসান্টিস মঙ্গলবার এই ‘ফল আউট’কে ‘একটি অমানবিক’ বিষয় হিসাবে নাকচ করে ড্যাশবোর্ডকে জাতীয় মডেল হিসাবে প্রশংসা করেছেন।

সূত্র : দ্য ইনডিপেন্ডেন্ট

Leave a Reply