ইরানের গাড়ির রাজা মৃত্যুদণ্ড পেল

ইরানের গাড়ির রাজা মৃত্যুদণ্ড পেল

মুদ্রা চোরাচালান ও অর্থ পাচারের মতো অপরাধের কারণে গাড়ির রাজা হিসেবে খ্যাত ওয়াহিদ বেহজাদিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে ইরান। তার বিরুদ্ধে ইরানের অটোমোবাইল মার্কেটে সমস্যা সৃষ্টি করারও অভিযোগ রয়েছে। ইরানের বিচার বিভাগের মুখপাত্র এই তথ্য জানিয়েছেন।

মুখপাত্র গোলাম হোসেইন ইসমাইলি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, বেহজাদি ও তার স্ত্রী নাজভা লাসেদাই উভয়ই এই মামলায় জড়িত। তাদের দু’জনকেই মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ইরানের গাড়ি উত্পাদনকারী সংস্থা সাইপার কারখানা থেকে ছয় হাজার গাড়ি কেনা ও মজুদ করার অভিযোগ রয়েছে।

হোসেইন ইসমাইলি আরো বলেন, তারা ইরান থেকে ধাতুমুদ্রা পাচার করেছে। প্রায় দু’শ মিলিয়ন ডলার তারা ইরান থেকে সরিয়ে নিয়েছে। তাদের বাড়ি থেকে একশ কেজি সোন ও ২৪ হাজার সাতশরও বেশি স্বর্ণমুদ্রা উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, তারা যদি দণ্ডের আপিল করতে চায় তাহলে ২০ দিনের মধ্যে করতে হবে।

এদিকে, ওয়াহিদ বেহজাদি ছাড়াও দুই সংসদ সদস্য, ফেরিডাউন আহমাদি ও মোহাম্মদ আজিজিকে সাইপা আর্থিক দুর্নীতির মামলায় কাঠগড়ায় তুলা হয়। তাদেরও দণ্ড দেওয়া হয়েছে। তাদের প্রত্যেককে ৬১ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এই মামলা নিয়ে দু’জন সাংসদের কেউেই প্রকাশ্যে মন্তব্য করেননি।

ইসমাইলি জানিয়েছেন, এই ঘটনায় সাইপা গাড়ি কারখানার প্রাক্তন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহদি জামালিকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, গাড়ি বিতরণ কাজে সমস্যা করা।

ইরানের অর্থনীতি প্রায় ভেঙে পড়ার মুখে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে। তাই দেশটির অর্থনীতিকে উন্নত করতে ইরানের বিচার বিভাগ সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে একটি অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

২০১৮ সালের শেষ দিক থেকে ইরানি বিচার বিভাগী হাসান রুহানির ভাইসহ বড় ধরনের আর্থিক দুর্নীতির মামলায় জড়িত ব্যক্তিদের প্রকাশ্যে বিচার করছে ও দণ্ড দিয়ে আসছে। আর এবার দণ্ড পেল ইরানের গাড়ির রাজা খ্যাত বেহজাদি।

সূত্র: আইএফপি নিউজ।

Leave a Reply