যুক্তরাষ্ট্রে মরতে শুরু করেছে মুদি কর্মচারীরা, বন্ধ হবে নিত্যপণ্যের সরবরাহ!

যুক্তরাষ্ট্রে মরতে শুরু করেছে মুদি কর্মচারীরা, বন্ধ হবে নিত্যপণ্যের সরবরাহ!

ভয়াবহ করোনার তাণ্ডব এখন সবচেয়ে বেশি আমেরিকায়। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৬৭ হাজার ৬৫৯ জনে। মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ৯৪৩ জনের। লকডাউন হয়েছে প্রায় পুরো দেশ। দোকান-বাজার, শপিংমল সবই বন্ধ। তবে মানুষের নিত্যপ্রয়োজনের কথা ভেবে খোলা ছিল সুপারমার্কেটগুলি। এতোদিন বিভিন্ন পেশার মানুষের করোনা সংক্রমণে মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলেও বড় বড় চেইন সুপারমার্কেটগুলিতে করোনায় মৃত্যুর খবর শোনা যায়নি। এবার সুপারমার্কেটগুলির কর্মচারীদের মৃত্যুর খবর আসতে শুরু করেছে।

চেইন সুপারশপগুলি তাদের করোনভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কর্মচারী মৃত্যুর খবর প্রকাশ করতে শুরু করেছে। যেটা মহামারিটির তাণ্ডবে বন্ধ হয়ে যাওয়া বাজারে নতুন উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে। মুদি কর্মচারীদের মৃত্যুতে এসব সুপারশপগুলিও বন্ধ হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এগুলো বন্ধ হয়ে গেলে মানুষের নিত্যপণ্যের সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে।

স্কয়ারডেলে, এনওয়াইয়ের সুপারশপের একজন শ্রমিক জো করোনায় মারা গেছেন। একই ভাবে শিকাগো-এরিয়া স্টোরের দু’জন ওয়ালমার্ট কর্মী কোভিড -১৯ এর কারণে মারা গেছেন। নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণে সুপারশপগুলিতে মৃত্যুর ঘটনা এটাই প্রথম। সংস্থাগুলির পক্ষ থেকে সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ৪০ টিরও বেশি রাজ্যে অপ্রয়োজনীয় ব্যবসা বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ এবং বাসিন্দাদের ভাইরাসটির বিস্তার রোধে বাড়িতে থাকতে বলেছে। খুচরা ব্যবসায়ীদের মধ্যে শুধুমাত্র সুপারমার্কেটগুলি খোলা রয়েছে। সেখানে কয়েক হাজার মুদি কর্মচারী কাজ করছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার ক্রমশ বাড়তে থাকলেও এসব কর্মচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ চালিয়ে যাওয়া অব্যাহত রেখেছিলেন। চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় কর্মচারীদের দীর্ঘ সময় ও আতিরিক্ত কাজ করতে হচ্ছিল।

অনেক শ্রমিক বলেছেন যে, দিনে তাদের কয়েক শ গ্রাহকের সাথে কাজ করার মতো পর্যাপ্ত সুরক্ষা সরঞ্জাম নেই। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে কয়েক হাজার মুদি কর্মী করোনভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

শিল্প বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শ্রমিকদের সংক্রমণ এবং মৃত্যুর ঘটনা বৃদ্ধির ফলে মুদি ব্যবসায়ীদের সুপারশপগুলি চালু রাখা অসম্ভব হয়ে পড়বে। একসাথে বিপুল সংখ্যক কর্মী আক্রান্ত হওয়ায় কর্মী সংকটে পড়বে যেটা বাজারগুলি চালু রাখার সক্ষমতার উপর প্রভাব ফেলবে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় তারা হাজার হাজার অস্থায়ী কর্মচারী দ্রুত নিয়োগের চেষ্টা করছেন। যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় চেইন সুপার মার্কেট ওয়ালমার্ট। সেখানে প্রায় দেড় লাখ নতুন কর্মী নিযুক্ত করার চেষ্টা করছে কর্তৃপক্ষ। আরেক জায়ান্ট সুপারশপ ক্রগার ১০ হাজার কর্মী নিয়োগ দিয়েছে। অনেকে এক ঘন্টা অতিরিক্ত কাজের জন্য ২ ডলার দিচ্ছেন এবং মাস্ক, গ্লোভস এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করছেন।

সুপারমার্কেট বিশ্লেষক ফিল লেম্পার্টের মতে, ন্যূনতম মজুরির চেয়ে সামান্য বেশি দামের জন্য সামনের লাইনে কাজ করতে ইচ্ছুক লোকদের সন্ধান করা প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।

সূত্র- এমএসএন।

Leave a Reply