করোনায় মারা গেলেন জ্যাজ সংগীতের অন্যতম পথিকৃত এলিস মার্শালেস

করোনায় মারা গেলেন জ্যাজ সংগীতের অন্যতম পথিকৃত এলিস মার্শালেস

করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন যুক্তরাষ্ট্রের জ্যাজ কিংবদন্তি শিল্পী এলিস মার্শালে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। খবরটি নিশ্চত করেছেন তাঁর ছেলে ব্র্যানফোর্ড। তাঁর বরাতে জানা যায়, এলিস মার্শালেস বুধবার মারা যান। আর তাঁর পিতার মৃত্যুর কারণ ছিল কোভিড -১৯ জটিলতা।
যুক্তরাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্য নিউ অরলিন্সের জ্যাজ সংগীত অঙ্গনে তাঁকে এক কিংবদন্তি হিসাবেই দেখা হতো। ১৯৩৪ সালের ১৪ নভেম্বর নিউ অরলিন্সে এক সংগীত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর সংগীত জীবন শুরু হয় চল্লিশের দশকে। তবে সবার নজরে আসেন আশি এবং নব্বই দশকে।
প্রথম জীবনে স্যাক্সোফোন বাদন দিয়ে শুরু করলে নিজেকে খুঁজে পান পিয়ানো বাদনে। পরে তিনি পিয়ানো প্রশিক্ষক হিসেবেও অনেকদিন কাজ করেছেন। পঞ্চাশ এবং ষাটের দশকে তিনি কাজ করেছেন এড ব্ল্যাকওয়েল, ক্যাননবল অ্যাডারলি, নাট অ্যাডারলি এবং আল হার্টের মতো শিল্পীদের সঙ্গে। শুধু অন্যান্য শিল্পীদের সঙ্গেই নয় নিজের একক অ্যালবামও প্রকাশ করেছেন বিশটির মতো।
জ্যাজ সংগীতের এই পথিকৃত বিদায়ে শোক প্রকাশ করছেন তাঁর ভক্তরা। পিছিয়ে ছিলেন না খ্যাতিমান ভক্তরাও। অনলাইনে প্রয়াত এই তারকাকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন গায়ক জন লেজেন্ড। তিনি এক টুইটবার্তায় লিখেছেন, “এলিস মার্শালেসের পরিবারের প্রতি রইলো ভালবাসা এবং সমবেদনা। ”
অন্যদিকে মার্শালেস জুনিয়রের সাথে নিজের একটি ছবি শেয়ার করে টুইটারে অ্যাপলের সিইও টিম কুক লিখেছেন, “এলিস মার্শালেস ছিলেন একজন সত্যিকারে কিংবদন্তি।”
সমবেদনা জানিয়েছেন নিউ অরলিন্সের মেয়র লাটোয়া ক্যান্ট্রেলও। তিনি বলেন,”আমাদের সকলের ভালবাসা এবং প্রার্থনা তাঁর পরিবারের জন্য।”

Leave a Reply