ঘরে ঘরে পঁচে পড়ে থাকছে লাশ!

ঘরে ঘরে পঁচে পড়ে থাকছে লাশ!

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় হিমশিম খাচ্ছে উন্নত দেশগুলো। অনুন্নত দেশের মতো অসহায় হয়ে পড়েছে চিকিৎসা, প্রযুক্তি আর সম্পদে উন্নত দেশগুলোও।

ইউরোপের দেশ ইতালি ও স্পেনের অবস্থা ভয়বাহ। স্পেনে ঘরের মধ্যেই মানুষ মরে পড়ে থাকছে। সেখানেই পঁচে যাচ্ছে লাশ।

বিবিসি ও সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, স্পেনে প্রতিদিনই শত শত মানুষ মারা যাচ্ছে দেশটিতে। ঘরের মধ্যে মরে পঁচে-গলে যাচ্ছে লাশ। সরানোর কিংবা দাফনের কেউ নেই। বাড়ি বাড়ি গিয়ে সেইসব পচা-গলা লাশ উদ্ধার করছে সেনাবাহিনী।

এদিকে দেশটির বৃদ্ধাশ্রম থেকেও উদ্ধার হচ্ছে বয়স্ক মানুষের লাশ। জীবনের শেষ আশ্রয় এসব বৃদ্ধাশ্রমে আক্রান্তদের ফেলে পালিয়েছে কর্তৃপক্ষ। অতিরিক্ত লাশের কারণে উপচে পড়ছে মর্গগুলো।

স্পেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানিয়েছেন বলে বিবিসি ও সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের খবরে উল্লেখ করা হয়েছে।

খবরে বলা হয়, সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বাড়ি বাড়ি পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যাচ্ছে বয়স্কদের। কখনও কখনও বিছানার উপরেই পাওয়া যাচ্ছে তাদের মরদেহ।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্গারিটা রবলস বলেন, অভিযানের সময় বেশকিছু বাড়িতে বয়স্কদের পরিত্যক্ত অবস্থায় আবিষ্কার করেছে সেনাবাহিনী। কখনও তাদের মরদেহ পাচ্ছে তারা। অমানবিক এসব ঘটনা খতিয়ে দেখার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির সরকারি আইনজীবীরা।

স্পেনে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৭৩৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এর মধ্য দিয়ে ইতালির পর মৃত্যুতে চীনকে ছাড়িয়ে গেল স্পেন।

স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আজ বুধবার জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৩৮ জনের মৃত্যু নিয়ে দেশ এখন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ৩ হাজার ৪৩৪ জন। গত মঙ্গলবার যা ছিল ২ হাজার ৬৯৬। করোনার উৎপত্তিস্থল চীনে মারা গেছেন ৩ হাজার ২৮১।

স্পেনে এখন করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭ হাজার ৬১০ জন। গত মঙ্গলবার আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৩৯ হাজার ৬৭৩। তবে আক্রান্তের দিক দিয়ে চীন ও ইতালির পরই যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৫৪ হাজার ৯৬৩। এছাড়া মৃত্যু হয়েছে ৭৮৪ জনের।

Leave a Reply