সিটি নির্বাচনের দিন যুবক খুন : দুই আসামির স্বীকারোক্তি

সিটি নির্বাচনের দিন যুবক খুন : দুই আসামির স্বীকারোক্তি

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের রায়েরবাজার এলাকায় সুমন শিকদার নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত দুজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আজ বুধবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে জবানবন্দি দেন তারা। অন্যদিকে অপর তিনজনকে দুই দিন করে রিমান্ড নেওয়ার আদেশ দেন আদালত।

জানা গেছে, আজ বুধবার বিকেলের দিকে সুমন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার পাঁচজনকে আদালতে হাজির করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। এদের মধ্যে আসামি আল আমিন খান ও ইমরানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করার আবেদন জানানো হয়। সেইসঙ্গে আসামি রাসেল, শাকিল ও রাজীবকে সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়।

পরে আল আমিন খান ও ইমরানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করেন মহানগর হাকিম শাহিনুর রহমান। স্বীকারোক্তিতে তারা এই ঘটনায় জড়িত ছিলেন বলে স্বীকার করেন। সেইসঙ্গে ঘটনার সঙ্গে আরো যারা জড়িত ছিল তাদের নামও প্রকাশ করেন তারা। জবানবন্দি শেষে তাদের কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

এছাড়া অন্য তিনজনকে মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালতে হাজির করা হয়। শুনানি শেষে আদালত প্রত্যেককে দুই দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার নির্দেশ দেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার রাত ১১টা হতে আজ বুধকার ভোর পর্যন্ত ঢাকা মহানগর ও আশেপামের এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

প্রসঙ্গত, গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষে রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোহাম্মদপুর থানাধীন রহিম বেপারীর ঘাট এলাকায় সুমন শিকদারকে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় পরদিন মোহাম্মদপুর থানায় মামলা করা হয়।

সুমন শিকদার ৩২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী সৈয়দ হাসান নুর ইসলামের পোলিং এজেন্ট ছিলেন।

Leave a Reply