ট্রাফিক সিগন্যালের অব্যবস্থাপনার কারণ জানতে চান হাইকোর্ট

ট্রাফিক সিগন্যালের অব্যবস্থাপনার কারণ জানতে চান হাইকোর্ট

অটোমেটিক ট্রাফিক সিগন্যাল সিস্টেম পরিচালনা ও মনিটরিং-এর জন্য একমাসের মধ্যে বিধিমালা তৈরি করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ট্রাফিক সিগন্যাল পরিচালনায় অব্যবস্থাপনার কারণ চিহ্নিত করে তা প্রতিবেদন আকারে দাখিল করতে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক)-কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ সোমবার এ আদেশ দেন।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মনোজ কুমার ভৌমিকের করা এক রিট আবেদনে এ আদেশ দেওয়া হয়। সিগন্যাল সিস্টেম মনিটরিং-এ অব্যবস্থাপনা নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে এই রিট আবেদন করা হয়।

রিট আবেদনকারী নিজেই শুনানি করেন। তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট সুলাইমান হাওলাদার মিন্টু। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। আদালত অন্তবর্তীকালীন নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করেছেন।

রুলে অটোমেটিক ট্রাফিক সিগন্যাল সিস্টেম পরিচালনা ও মনিটরিং-এ অব্যবস্থাপনা দূর করতে সংশ্লিষ্টদের নিস্ক্রীয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। স্বরাষ্ট্র ও স্থানীয় সরকার সচিব, পুলিশ মহাপরির্দশক, ডিএমপি কমিশনার, পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক), দুই সিটি কর্পোরশনের সিইওসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদেশের পর আইনজীবী জানান, ট্রাফিক সিগন্যালের বাতি ঠিকঠাক মতো জ্বলে না। দেখা যায়, একদিকে বাতি জ্বলছে, তারপরও ট্রাফিক পুলিশ হাতের ইশারায় গাড়ি থামাচ্ছে। সিগন্যাল দিচ্ছে। ফলে দিনের পর দিন ট্রাফিক সিগন্যালের অব্যবস্থাপনার জন্যে অনাকাক্ষিত দুর্ঘটনা ঘটছে।

Leave a Reply