অনন্য নজির গড়লেন জর্ডানের রাজকন্যা

অনন্য নজির গড়লেন জর্ডানের রাজকন্যা

জর্ডানের প্রথম নারী যুদ্ধবিমান পাইলট হিসেবে নতুন ইতিহাস তৈরি করেছেন দেশটির রাজকন্যা সালমা বিনতে আবদুল্লাহ। ১৯ বছর বয়সী রাজকন্যাকে গত বুধবার এক অনুষ্ঠানে ‘এভিয়েশন উইং’ পড়িয়ে দেন দেশটির বাদশাহ দ্বিতীয় অবদুল্লাহ।

জানা গেছে, সালমা বিনতে আবদুল্লাহ ২০১৮ সালে নভেম্বরে জর্ডানের সামরিক বাহিনীর সঙ্গে বিমান উড়ানোর প্রশিক্ষণ নিয়ে পরীক্ষায় সফল হন। এর আগে ইংল্যান্ডে রয়্যাল মিলিটারি অ্যাকাডেমি থেকে স্নাতক হন তিনি। আর কয়েকদিনের মধ্যেই বিমান উড়ানোর কাজ শুরু করবেন তিনি।

রয়েল হাশেমাইট কোর্ট এক বিবৃতিতে জানায়, সালমার পাইলট হিসেবে অভিষেক অনুষ্ঠানে অংশ নেন তাঁর মা রানি রানিয়া এবং বড় ভাই যুবরাজ আল হুসেন বিন আবদুল্লাহ।

জর্ডানের সশস্ত্র বাহিনীতে ফার্স্ট লেফটেন্যান্ট পদে রয়েছেন যুবরাজ হুসেন। এক ইনস্টাগ্রাম পোস্টে বোনকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

যুবরাজ বলেন, জর্ডানের প্রথম নারী পাইলট হওয়ায় তোমাকে অভিনন্দন জানাই। প্রত্যেকবারের মতোই এবারও প্রতিভা ও পরিশ্রমের ফল পেয়েছো তুমি। এই উইং পড়ায় তোমাকে অভিনন্দন। ভবিষ্যতের জন্য অনেক শুভকামনা।

এদিকে, রাজকন্যাকে নিয়ে করা যুবরাজের পোস্ট মুহূর্তেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। ফেসবুক ও টুইটারে একের পর এক আসতে থাকে শুভেচ্ছা বার্তাসহ অনেক ইতিবাচক কমেন্ট।

এক টুইটার ব্যবহারকারী লেখেন, বড় হয়ে আমি রাজকন্যা হতে চাই-স্বপ্নটি এখন নতুন মাত্রা পেল।

প্রসঙ্গত, ইসলামিক দেশগুলোতে নারীদের স্বাধীনতা নেই বললেই চলে। সামাজিক তথা মৌলবাদীদের নানা বিধিনিষেধ মেনে চলতে হয় তাঁদের। আর এই পরিস্থিতিতে নিজের কৃতিত্বে নয়া নজির গড়েছেন জর্ডানের রাজকন্যা। যদিও, এর আগে দেশের প্রথম নারী হিসেবে সামরিক প্রশিক্ষণ শেষ করেছিলেন সালমার ফুপু প্রিন্সেস আসিয়া বিনতে হুসেইন। পরে তিনি দেশটির স্পেশ্যাল ফোর্সে যোগ দেন।

Leave a Reply