শেয়ার বাজার নিয়ে সংসদে উত্তাপ

শেয়ার বাজার নিয়ে সংসদে উত্তাপ

শেয়ার বাজার পরিস্থতি নিয়ে সংসদে উত্তাপ ছড়ালেন বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্যরা। তারা অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার স্বার্থে শেয়ার বাজারের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। বুধবার রাতে সংসদ অধিবেশনে অনির্ধারিত আলোচনার সুযোগ নিয়ে কথা বলেন বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ ও বিএনপির মো. হারুনুর রশীদ।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে আলোচনার সূত্রপাত করে কাজী ফিরোজ রশীদ। তিনি বলেন, দেশ চলে তিন নীতিতে। রাজনীতি, অর্থনীতি ও দুর্নীতিতে। দুর্নীতির কারণে শেয়ার মার্কেট মাটিতে শুয়ে গেছে, বিনিয়োগকারীরা রাস্তায় নেমে পড়েছে। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রীর যদি হস্তক্ষেপ করেন তাহলে শেয়ার মার্কেট আবার ফিরে আসতে পারে। নইলে ফিরে আসার কোন উপায় দেখি না।

অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে ফিরোজ রশীদ বলেন, অর্থমন্ত্রী অত্যন্ত সুদক্ষ। শেয়ার বাজার নিয়ে চিন্তাও করেন। এই মার্কেটে কোথায় কি হচ্ছে সে ধারণা ওনার আছে। তাই কারণগুলো আমাদের সবার জানা। সিকিউরিটি এক্সেচেঞ্জ কমিশন দুর্বল পঁচা কোম্পানীগুলো লিস্টিং করে বাজারে ছেড়ে দেয়। দুর্বল কোম্পানী শেয়ার বাজারে লিস্টিং দেওয়ার কারণে এরকম ধ্বস। এজন্য বিনিয়োগকারীরা রাস্তায় নেমেছে। কোম্পানী লিস্টিং দেয় সিকিউরিটি এক্সেচেঞ্জ কমিশন। দুর্বল লোক পঁচা কোম্পানী বাজারে নিয়ে আসছে,ফলে বিনিয়োগকারীদের রাস্তায় বসছে। তাই তদন্ত কমিশন গঠণ করার দাবি করেছিলাম। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কমিশন করা হয়নি, একটা লোককেও শাস্তির আওতায় আনা যায়নি। বাজার থেকে ৯৫ হাজার কোটি টাকার মূলধন নেই।

বিএনপির হারুনুর রশীদ বলেন, মন্ত্রীরা প্রশ্নোত্তর দেওয়ার সময় দেশে কোন বিপর্যয় দেখতে পান না। এখন দেশে কোন সংকট সমস্যা নেই। অথচ গত এক সপ্তাহ যাবৎ পুঁজি বাজারের জন্য মানুষ রাস্তায় শুয়ে পড়েছে। এতে বিপর্যস্ত লাখ লাখ পরিবার। এ ব্যাপারে সরকারের কোন পদক্ষেপ নেই।
তিনি বলেন, আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করছি। দেশে এতো প্রবৃদ্ধি, এতো উন্নতি। চারদিকে বিশাল বিশাল স্থাপনা তৈরি হচ্ছে। বিনিয়োগকারীদের রক্ষায় সত্যিকার অর্থে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে তা জানতে চাই।

Leave a Reply