মুখোশধারী সেই তরুণী আরএসএস-এর সদস্য

মুখোশধারী সেই তরুণী আরএসএস-এর সদস্য

ভারতের জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (জেএনইউ) নারীদের হস্টেলে হামলার ঘটনায় চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে। গত ৫ জানুয়ারি নারীদের হস্টেলে হামলা চালায় মুখোশধারী গুন্ডাবাহিনী। ওই হামলার ভিডিও প্রকাশ্যে আসে।

যেখানে এক নারীকে দেখা যায় হামলার নেতৃত্ব দিতে। অবশেষে সেই নারীর পরিচয় প্রকাশ্যে আনল দিল্লি পুলিশ। ওই নারীর নাম কোমল শর্মা। আরএসএসের ছাত্র সংগঠন এবিভিপির সক্রিয় সদস্য কোমল।

জানা গেছে, তিনি দিল্লির দৌলত রাম কলেজের ছাত্রী। নারীদের হস্টেলে আক্রান্ত ছাত্রী ও অধ্যাপকদের একাংশ ওই হামলার পেছনে এবিভিপির যুক্ত থাকার অভিযোগ তুলেছিলেন। এবার মুখোশধারী নারীর পরিচয় প্রকাশ্যে আসতেই অভিযোগ সত্য হলো।

হামলার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে আগেই। ভিডিওতে দেখা যায়, হামলাকারী কোমল শর্মা চেক জামা পরে ছিলেন। হালকা নীল রংয়ের স্কার্ফ দিয়ে মুখ ছিল ঢাকা। হাতে ছিল লাঠি। তিনি ও আরো দুই হামলাকারী ক্রমাগত হুমকি দিচ্ছিলেন আক্রান্তদের। বাকি দু’‌জনের হাতেও ছিল লাঠি। মুখ ছিল ঢাকা। ৫ জানুয়ারি সবরমতী হোস্টেলে শিক্ষার্থীদের মারধর করা ছাড়াও ভাঙচুর চালানো হয়েছিল।

দিল্লি পুলিশ এরই মধ্যে কোমল শর্মা ও বাকি দুই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিশ জারি করেছে। বাকি দুই মুখোশধারীর নাম অক্ষত অবস্তি ও রোহিত শাহ। পুলিশের দাবি, তিনজনের ফোনই বন্ধ রয়েছে। কোমল ছাড়াও বাকি দু’‌জন এবিভিপির সক্রিয় সদস্য বলে জানা গেছে।

এবিভিপির দিল্লি শাখার সচিব সিদ্ধার্থ যাদব স্বীকার করে নিয়েছেন যে কোমল সংগঠনের সদস্য। তিনি বলেছেন, কোমলের খোঁজ আমরাও করছি। শেষ খবর পেয়েছিলাম, কোমল পরিবারের সঙ্গে রয়েছে। এখন পর্যন্ত তার সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি।

তবে রোহিত শাহ এবিভিপি সদস্য নয় বলেই দাবি সংগঠনের। অতীতে এবিভিপি দাবি করেছিল, অক্ষত অবস্তিও সংগঠনের কেউ নন। যদিও পুলিশ অন্য কথাই বলছে।

Leave a Reply