ভারত ভ্রমণে ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা

ভারত ভ্রমণে ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা

সম্প্রতি ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল সংসদে উত্থাপন করার পর থেকেই উত্তরপূর্ব ভারতে বিক্ষোভ শুরু হয়। তবে দুই কক্ষে পাস হয়ে বিলটি এখন আইন। সবচেয়ে বেশি বিক্ষোভ হচ্ছে আসামের রাজধানী গোহাটিতে। বিক্ষোভ চলছে ত্রিপুরা, মেঘালয়, মণিপুর আর পশ্চিমবঙ্গেও। তাতে পাঁচজনের প্রাণহানিও ঘটেছে। এদিকে চলমান ব্যাপক বিক্ষোভের জেরে ওই অঞ্চলে ভ্রমণের জন্য নিজ নিজ দেশের নাগরিকদের সতর্ক করেছে ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল শুক্রবার দেশ দুটি ভারতে অবস্থানরত তাদের নাগরিকদের জন্য এ সতর্কতা জারি করেছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি-র বরাতে এ কথা জানা গেছে।

ব্রিটেনের ভ্রমণ সতর্কতায় বলা হয়েছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে দেশের (ভারতের) কিছু অংশে বিক্ষোভ চলছে। উত্তরপূর্ব ভারতে সহিংস বিক্ষোভের খবর পাওয়া যাচ্ছে, বিশেষ করে আসাম ও ত্রিপুারায়। গোহাটিতে কারফিউ জারিকরাসহ আসামের ১০ জেলায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ। যানবাহনেও হামলার ঘটনা ঘটছে।

এসব উল্লেখ করে বিবৃতিতে ব্রিটিশ নাগরিকদের নির্দেশনা দিয়ে বলা হয়, যদি কারও ওই অঞ্চলে যাওয়ার প্রয়োজন পড়ে তাহলে তাদের উচিত হবে সেখানকার স্থানীয় গণমাধ্যমের মাধ্যমে সর্বশেষ অবস্থা জানতে হবে। এছাড়া স্থানীয় কর্তৃপক্ষ যেসব নির্দেশনা দেয় তা মানাসহ প্রয়োজনে অন্য সময় ভ্রমণের সময় ঠিক করা।

যুক্তরাষ্ট্রের ভ্রমণ সতর্কতাতেও ভারতে একই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তবে তারা সাময়িকভাবে আসাম ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। বিক্ষোভের জেরে ভারত সফর বাতিল করেছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী এবং বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও তার মেঘালয়-অরুণাচল সফর বাতিল করেছেন।

আসামসহ অন্য রাজ্যগুলোতে কারফিউ জারি করা ছাড়াও কিছু এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ। পরিস্থিতি সামাল দিতে সেনা নামানো হয়েছে এবং প্রয়োজনে আরও সেনা মোতায়েনের জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে সেনাবাহিনীকে। বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সাধারণ মানুষের সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে।

Leave a Reply