সরকার জনকল্যাণমুখী রাজস্ব নীতি গ্রহণ করেছে : রাষ্ট্রপতি

সরকার জনকল্যাণমুখী রাজস্ব নীতি গ্রহণ করেছে : রাষ্ট্রপতি

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, সরকার রাজস্ব প্রবৃদ্ধির ধারাকে আরো গতিশীল করার উদ্যোগ হিসাবে জনকল্যাণমুখী রাজস্ব নীতি গ্রহণ করেছে।

আগামীকাল ১০ ডিসেম্বর ‘জাতীয় ভ্যাট দিবস, ২০১৯’ ও ‘জাতীয় ভ্যাট সপ্তাহ, ২০১৯’ উপলক্ষে আজ এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের উদ্যোগে আগামীকাল ১০ ডিসেম্বর ‘জাতীয় ভ্যাট দিবস’ এবং ১০ থেকে ১৫ ডিসেম্বর ‘জাতীয় ভ্যাট সপ্তাহ’ পালিত হচ্ছে জেনে রাষ্ট্রপতি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ভ্যাটদাতা ও ব্যবসায়ীবৃন্দকে উৎসাহ প্রদানের পাশাপাশি ভ্যাট বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতে এ উদ্যোগ সহায়ক হবে। জাতীয় ভ্যাট দিবস উপলক্ষে তিনি ব্যবসায়ী, ভোক্তাসাধারণ ও ভ্যাট আহরণ কাজে নিয়োজিত সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান।

তিনি বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনাসহ রাষ্ট্রের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে অব্যাহত রাখতে রাজস্ব অপরিহার্য উপাদান। রাজস্ব বৃদ্ধির মাধ্যমে আত্মনির্ভরশীলতা যেমন অর্জন হচ্ছে তেমনি বিশ্ব দরবারে উন্নত জাতি হিসাবে নিজেদের পরিচয় তুলে ধরাও সম্ভব হচ্ছে। বর্তমান সরকার রাজস্ব প্রবৃদ্ধির এই ধারাকে আরো গতিশীল করার উদ্যোগ হিসাবে জনকল্যাণমুখী রাজস্ব নীতি গ্রহণ করেছে।

আবদুল হামিদ বলেন, ভ্যাট ব্যবস্থাকে সময়োপযোগী, আধুনিক ও প্রযুক্তিনির্ভর করার প্রয়াসে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড নতুন ‘মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন, ২০১২’ বাস্তবায়ন করছে। এর ফলে অভ্যন্তরীণ রাজস্ব আহরণে একটি নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে।

তিনি বলেন, রাজস্বের প্রধান উৎস হচ্ছে মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট। যথাযথভাবে ভ্যাট আদায়ে রাজস্ব আহরণকারী কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে পারস্পরিক আস্থা ও যোগাযোগ বৃদ্ধি খুবই জরুরি।

রাষ্ট্রপতি প্রত্যাশা করেন, ‘জাতীয় ভ্যাট দিবস’ ও ‘জাতীয় ভ্যাট সপ্তাহ’ পালনের মাধ্যমে ব্যবসায়ী ও ভোক্তা সাধারণের মধ্যে ভ্যাট সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি রাষ্ট্রের রাজস্ব ভান্ডার সমৃদ্ধ হবে।

তিনি ‘জাতীয় ভ্যাট দিবস, ২০১৯’ ও ‘জাতীয় ভ্যাট সপ্তাহ, ২০১৯’ এর সার্বিক সফলতা কামনা করেন।

Leave a Reply