মোহামেডানের লোকমান সাত দিনের রিমান্ডে

মোহামেডানের লোকমান সাত দিনের রিমান্ডে

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় মোহামেডান রেস্পার্টিং ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ও বিসিবির পরিচালক লোকমান হোসেন ভূইয়াকে সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

আজ রবিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ও জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতের বিচারেক কে এম ইমরুল কায়েশ এ রামন্ড মঞ্জুর করেন। একই আদালত অনলাইন ক্যাসিনো সম্রাট সেলিম প্রধানের রিমান্ড শুনানির জন্য আগামী ১৩ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন।

লোকমান : লোকমান হোসেনকে দুর্নীতি দমন কমিশন গত ২৮ অক্টোবর দশ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত রবিবার শুনানির দিন ধার্য করেন। এদিন লোকমানকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। তার উপস্থিতিতে শুনানি শেষে আদালত সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সেলিম প্রধান : এদিকে সেলিম প্রধানের দশ দিনের রিমান্ডে আবেদন জানিয়ে দুদক আবেদন করে গত ৩১ অক্টোবর। রবিবার শুনানি শেষে আদালত আগামী ১৩ নভেম্বর শুনানির দিন ধার্য করেন। একই সঙ্গে সেলিম প্রধানকে আদালতে হাজির করতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন।

গত ২৭ অক্টোবর অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের ডাইরেক্টর ইনচার্জ ও বিসিবির পরিচালক লোকমান ভূঁইয়া এবং অনলাইন ক্যাসিনো ব্যবসায়ী সেলিম প্রধানের বিরুদ্ধে পৃথক করে দুদক।

সংস্থার ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মামলা দুটি হয়। মামলায় লোকমানের বিরুদ্ধে চার কোটি ৩৪ লাখ আর সেলিম প্রধানের বিরুদ্ধে ১২ কোটি ২৭ লাখ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়।

লোকমানের বিরুদ্ধে মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক সাইফুল ইসলাম। লোকমানের বিরুদ্ধে অভিযোগে বলা হয়েছে, মোহামেডান ক্লাবের ক্যাসিনোর জন্য ভাড়া বাবদ প্রতি মাসে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মমিনুল হক সাঈদের মাধ্যমে ২১ লাখ টাকা আদায় করতেন। এ ছাড়া তার আয়কর নথিতে সম্পদের বিবরণের সঙ্গে অনুসন্ধানে ৪ কোটি ৩৪ লাখ টাকার সম্পদের সন্ধান পাওয়া গেছে। এই সম্পদের বৈধ উৎস পাওয়া যায়নি।

অনলাইন ক্যাসিনো ব্যবসায়ী সেলিমের বিরুদ্ধে মামলা করেন উপপরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান। এজাহারে বলা হয়, সেলিমের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জাপান-বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ প্রিন্টিং ও অন্যান্য কম্পানির শেয়ারহোল্ডারের হিসাব আয়কর নথিতে না দেখিয়ে রাজস্ব ফাঁকিসহ অবৈধভাবে ১২ কোটি ২৭ লাখ টাকা অর্জন করেছেন।

Leave a Reply