‘চীনের সাথে ভারতের সম্পর্কের নতুন অধ্যায়ের সূচনা হয়েছে’

‘চীনের সাথে ভারতের সম্পর্কের নতুন অধ্যায়ের সূচনা হয়েছে’

চীন ও ভারতের মধ্যে দুই দিনব্যাপী অনানুষ্ঠানিক শীর্ষ সম্মেলন শেষ হয়েছে। শনিবার তামিলনাড়ুর মামাল্লপুড়াম শহরে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মধ্যকার এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে সংবাদ মাধ্যমকে মোদী বলেন, চীনের সাথে ভারতের সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন অধ্যায়ের সূচনা হয়েছে। খবর এনডিটিভির।

কেন্দ্রীয় পররাষ্ট্র সচিব বিজয় গোখলে এক বিবৃতিতে বলেন, দুই নেতা উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের বিষয়ে নানা কথা বলেছেন। এসময় তাদেরমধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি সম্পর্কেও কথা হয়। বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং পরিষেবা নিয়ে আলোচনার জন্য ভারত ও চীন দুই দেশের মধ্যে একটি নতুন প্রক্রিয়া চালু করবে।

এদিকে চীনের সরকারি সংবাদ সংস্থা সিনহুয়া নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, শি জিনপিং দুই দেশের জনগণের মধ্যে বৃহত্তর ও গভীর সাংস্কৃতিক যোগাযোগ বিনিময়ের সুযোগ হিসেবে আগামী বছর চীন-ভারত কূটনৈতিক সম্পর্কের ৭০তমবার্ষিকী পালনের জন্য ভারতকে আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার গভীর রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার বলে, ভারত ও চীন কট্টরপন্থা এবং সন্ত্রাসবাদকে সাধারণ চ্যালেঞ্জ হিসাবে বিবেচনা করে এর বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়াই করবে।

তবে বৈঠকে কাশ্মির ইস্যু নিয়ে কোন কথা হয়নি। বিশ্লেষকদের মতে, কাশ্মীর নিয়ে যাতে কোন অস্বস্তিকর পরিবেশ তৈরি না হয় এ জন্য দুই নেতা বৈঠকে প্রসঙ্গটি এড়িয়ে গেছেন। আপাতত কাশ্মীর নিয়ে কোন ধরনের বিরোধিতা বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে আসবে না বলেই আশা করছেন বিশ্লেষকরা।

প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে দ্বিতীয় অনানুষ্ঠানিক শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে শুক্রবারই চেন্নাইয়ে আসেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এরপর প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে মহাবলীপুরম মন্দির ঘুরে দেখেন জিনপিং। পরে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করে একসঙ্গে নৈশভোজ সারেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান। গত দুই দিনে এই দুই নেতা একে অপরের সঙ্গে পাঁচ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বৈঠক করেছেন।

Leave a Reply