সাধারণ মানুষকে গুলি করে হত্যা, কাউন্সিলরপুত্র নির্মম গণপিটুনির শিকার

সাধারণ মানুষকে গুলি করে হত্যা, কাউন্সিলরপুত্র নির্মম গণপিটুনির শিকার

ভারতের বিহার রাজ্যের ভাবুয়া ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের ছেলে এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করেন। এ ঘটনার জেরে উত্তেজিত জনতা ওয়ার্ড কাউন্সিলরের ওই ছেলেকে নির্মমভাবে গণপিটুনি দেয়।

গুরুতর আহত অবস্থায় বিহারের কায়মুর জেলার একটি হাসপাতালে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। ভারতের ইংরেজি দৈনিক ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গুলি করে এক ব্যক্তিকে হত্যার ঘটনায় উত্তেজিত জনতা তাকে পুলিশের সামনেই গণপিটুনি দেয়। ঘটনাটি ঘটেছে ভাবুয়ার শিভাজি চক এলাকায়।

এ ঘটনার দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করেছেন সেখানে উপস্থিত এক ব্যক্তি। পরে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়ে ওই যুবককে বেধড়ক মারধর করছেন উত্তেজিত জনতা। তার বুকের উঠে মুখে একের পর এক ঘুষি মারেন এক যুবক। মারতে মারতে মুখ ফাটিয়ে দেন তিনি। এ সময় আঘাতকারী যুবকের হাত রক্তে মেখে যায়।

একপর্যায়ে তিনি কাউন্সিলরের ছেলের বুকের উপর থেকে উঠে গেলেও আবার ফিরে এসে শূন্যে ভেসে বুকে লাথি মারেন কয়েকবার। যেন কাউন্সিলরের ছেলের বুকের হাড়-পাঁজর সব ভেঙে ফেলার চেষ্টা চালান তিনি। ওই সময় সেখানে বহু মানুষ উপস্থিত থাকলেও কেউ মারধর থামাতে আসেননি।

মারধরের পর পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ওই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। তবে একপর্যায়ে শোনা যায়, গুলিবিদ্ধ ব্যক্তি হাসপাতালে মারা গেছেন। এতে জনতা উত্তেজিত হয়ে কাউন্সিলরের ছেলের মৃত্যুদণ্ড চান। ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় জনগণ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দরজা ভেঙে ফেলেন।

যেখানে ওই যুবককে চিকিৎসা করা হচ্ছে, সেই কক্ষে পাথর নিক্ষেপ করেছে জনতা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় অন্তত দু’জন আহত হয়েছেন।

উত্তেজিত জনতা তারপর হাসপাতালের বাইরে গিয়ে একটি দোকান ভাঙচুর করে এবং হাসপাতালের গেটে পাথর নিক্ষেপ করতে থাকে। বিক্ষোভের কারণে হাসপাতাল থেকে বের হতে পারেনি পুলিশ। লোকজন বাইরে হৈ চৈ করতে থাকে এবং কিছু পথচারীকেও মারধর করে। জানা গেছে, হাসপাতালের বাইরের দোকানিদেরও মারধর করেছে উত্তেজিত জনতা।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে কায়মুরের এসপি জনতার উদ্দেশ্যে অনুরোধ জানান, তারা যেন আইন নিজেদের হাতে তুলে না নেয়। তার পরেও জনগণ শান্ত হয়নি।

ঘটনার সেই ভিডিও থাকলেও, তা আমাদের নীতির সঙ্গে না যাওয়ায় প্রকাশ করা হলো না।

সূত্র : ইন্ডয়া টুডে

Leave a Reply