‘সীমান্ত পেরিয়ে কাশ্মীরিদের সাহায্য ভারতকে অস্ত্র তুলে দেয়ার মতো’

‘সীমান্ত পেরিয়ে কাশ্মীরিদের সাহায্য ভারতকে অস্ত্র তুলে দেয়ার মতো’

নিজেকে বহুবার কাশ্মীরের দূত বলে ঘোষণা করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কাশ্মীরের দুর্দশার কথা যুক্তিসঙ্গতভাবে তুলে ধরার পর প্রশংসার বন্যার ভেসেছেন তিনি।

দিল্লিকে সতর্ক আবার কখনো হুমকি দিয়ে তিনি বলেছেন, নিজেদের স্বার্থে যুদ্ধের ময়দানে যেতে প্রস্তুত পাকিস্তানি বাহিনী। তবে সম্প্রতি তাকে উপেক্ষা করে পাকিস্তানের শিল্প মহলের সঙ্গে পৃথক বৈঠক করেছেন সে দেশের সেনাপ্রধান জাভেদ বাজওয়া।

এরকম পরিস্থিতিতে ইমরান খান এক টুইট বার্তায় বলেছেন, গত দুই মাস ধরে জম্মু-কাশ্মীরের বাসিন্দারা অমানবিক কারফিউ জারির ফলে যে ধরনের পরিস্থিতিতে পড়েছে, তা দেখে কাশ্মীরিদের মনের ক্ষোভ সম্পর্কে আমি অবহিত। তবে সীমান্ত পেরিয়ে কাশ্মীরিদের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে ভারতের হাতে হাতিয়ার তুলে দেওয়া হবে।

ইমরান খানের এই টুইটকে কেন্দ্র করে আবারো বিতর্ক দেখা দিয়েছে। বিভিন্ন মহল থেকেই দাবি করা হচ্ছে, পরোক্ষে সীমান্তে অনুপ্রবেশের কথা স্বীকার করে নিলেন ইমরান খান।

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের এই টুইট এমন এক সময়, যখন অনন্তনাগে পুলিশের ডেপুটি কমিশনারের অফিসে গ্রেনেড ছোঁড়া হয়েছে। ঘটনায় আহত কমপক্ষে ১০ জন।

প্রসঙ্গত, ভারত সরকারের ৩৭০ ধারা বাতিলের বিরোধিতা করে গতকাল পাকিস্তানের অধীনে থাকা কাশ্মীরের মুজাফ্ফরাবাদে বিক্ষোভ দেখানো হয়। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় গাড়ি-বাইকে।

পাকিস্তানি দৈনিক দ্য ডনের খবর অনুযায়ী, জম্মু-কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্টের আহ্বানেই ওই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়।

Leave a Reply