মুম্বাইয়ের ফুসফুসখ্যাত ‘আরে’ ধ্বংসের মুখে, বলিউড তারকাদের ক্ষোভ

মুম্বাইয়ের ফুসফুসখ্যাত ‘আরে’ ধ্বংসের মুখে, বলিউড তারকাদের ক্ষোভ

বলিউড তারকাদের পরিবেশ প্রেমের কথা এর আগেও বহুবার জানা গেছে। পরিবেশবিরোধী ইস্যুতে বারবার গর্জে উঠেছেন তারা। তারা যে আসলেই প্রকৃতিপ্রেমী সেটা আরেকবার জানা গেলে।

বৃহনমুম্বাই মিউনিসিপাল করপোরেশনের (বিএমসি) বিরুদ্ধে বলিউড তারকা আলিয়া ভাট, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, বিশাল দাদলানি, দিয়া মির্জার মতো একাধিক সেলিব্রেটি সরব হয়েছেন নির্বিচারে গাছ কাটার বিরুদ্ধে।

মুম্বাইয়ের আরে বনাঞ্চল এখন বিপদের মধ্যে রয়েছে। কারণ, আধুনিক প্রযুক্তির নজর পড়েছে সেখানে। যার জন্য বৃহনমুম্বই মিউনিসিপাল করপোরেশনের পক্ষ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, থরে থরে সেই বনাঞ্চলের গাছ কেটে ফেলার। আর তার সংখ্যাও নেহাত কম নয়। প্রায় ২৭০০ গাছ কাটার নির্দেশ দিয়েছে উপরমহল।

মুম্বাইয়ের আরে কলোনি এবং সঞ্জয় গান্ধী জাতীয় উদ্যান যোগ করে মুম্বাই মেট্রোর কারশেডের করিডর নির্মাণের জন্য বিস্তীর্ণ এলাকা দখল করেছে মুম্বাই মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।

মুম্বাই মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষের ওই সিদ্ধান্তে সীলমোহর দিয়েছে মুম্বাই হাইকোর্ট। আদালতের রায়ের পর আরে কলোনির জঙ্গল সাফ অভিযান শুরু হয়ে গেছে। প্রতিবাদে জড়ো হয়েছেন সাধারণ মানুষ। এর আগে অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুরও আরে বনাঞ্চলের গাছ কাটার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছিলেন।

মুম্বাইয়ের সবুজ ফুসফুসের ওপর এ আঘাত মেনে নিতে পারেননি সাধারণ মানুষ-সহ বলিউড তারকারা। আর তাই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রতিবাদে মুখর হয়েছেন তারা।

এবার আলিয়া ভাট, দিয়া মির্জা, বিশাল দাদলানি এবং সিদ্ধার্থ মালহোত্রার মতো একাধিক বলিউড তারকা প্রতিবাদের ঝড় তুলেছেন। যেখানে প্রকৃতিকে বাঁচানোর জন্য ভারতে প্লাস্টিক বিরোধী অভিযান শুরু করেছে মোদি সরকার, সেখানে নির্বিচারে আরে বনাঞ্চলের গাছ কেটে ফেলাকে একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না মুম্বাইয়ের পরিবেশপ্রেমীরা।

শুধু মায়ানগরীর বাসিন্দারাই নন, বিএমসি’র এই নির্দেশে গর্জে উঠেছেন সারা ভারতের পরিবেশপ্রেমীরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদী বার্তা ভেসে যাচ্ছে।

Leave a Reply