উত্তর আয়ারল্যান্ডের শিক্ষার্থীদের মাতৃভাষা দিবসের গল্প শোনালেন ভূমিমন্ত্রী

উত্তর আয়ারল্যান্ডের শিক্ষার্থীদের মাতৃভাষা দিবসের গল্প শোনালেন ভূমিমন্ত্রী

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী ইউরোপের দেশ উত্তর আয়ারল্যান্ড সফরকালে সেখানকার শিক্ষার্থীদের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের গল্প শুনিয়েছেন।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ শনিবার একথা জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ভূমিমন্ত্রী গত ৫ সেপ্টেম্বর একটি সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে উত্তর আয়ারল্যান্ডে গেলে, সময় করে তিনি বেলফাস্টে অবস্থিত একমাত্র আইরিশ মাধ্যম উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল ‘কলেস্তে ফ্যাইয়ারিস্তা’ পরিদর্শনে যান। সেখানে তিনি স্কুল লাইব্রেরীতে স্কুলের শিক্ষার্থীদের সাথে এক অনানুষ্ঠানিক সম্মিলনে অংশ নেন।

স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শন মিস্টেইল ও অধ্যক্ষ মিখেইল ম্যাক গিওলা গুনা এ সময় মন্ত্রীকে স্বাগত জানান।

মন্ত্রীর এই সফরকালে উত্তর আইরিশের কিশোর-কিশোরীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমাদের মাতৃভাষার অস্তিত্বকে টিকিয়ে রাখার জন্য যে রক্তক্ষয়ী সংগ্রাম হয়েছিল, তারই স্মৃতিবিজড়িত দিবস আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। শুধু মায়ের ভাষার জন্য সংগ্রাম হয়েছে পৃথিবীর ইতিহাসে এ রকম ঘটনা অত্যন্ত বিরল।

মন্ত্রী এ সময় তাদের জানান, কিভাবে ১৯৫২ সালে আমাদের মাতৃভাষা বাংলাকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য দাবি করার কারণে তৎকালীন পাকিস্তানি পুলিশ কর্তৃক বাংলাদেশিদের নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হতে হয়েছিল। নিজ ভাষার জন্য জীবন উৎসর্গকারীদের স্মৃতি স্মরণার্থে এবং বিশ্বব্যাপী ভাষা ও সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যের সচেতনতা বৃদ্ধি করার লক্ষ্যেই জাতিসংঘ কর্তৃক মাতৃভাষা দিবস প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। জাতি গঠনে এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে মাতৃভাষার গুরুত্বের ব্যাপারেও মন্ত্রী তাদের অবহিত করেন।

ভূমিমন্ত্রী ওই স্কুলের শিক্ষার্থীদের বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস সম্পর্কেও অবহিত করেন। অবহিত করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে কিভাবে ১৯৭১ সালে ৯ মাস জাতীয় মুক্তির জন্যে ঐতিহাসিক সংগ্রাম করে পাকিস্তানি বাহিনীকে পরাজিত করে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করে।

শন মিস্টেইল এসময় ধন্যবাদ জানাতে গিয়ে বলেন, মন্ত্রীর বক্তব্য তার শিক্ষার্থীদের দৃঢ় বিশ্বাসকে সত্যই অনুরণিত করছে।

নর্থ বেলফাস্ট নিউজ’র সাংবাদিক মাইকেল জ্যাকসন বেলফাস্ট মিডিয়া গ্রুপ এর ওয়েবসাইটে গত ১৭ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত তার ‘ভাষা সংগ্রামের গল্প শোনাতে ৫০০০ মাইলের যাত্রা’ নামক নিবন্ধে উল্লেখ করেন, ‘৫,০০০ মাইল কিংবা আরো কিছু দূরত্ব বাংলাদেশ থেকে বেলফাস্টকে আলাদা রাখতে পারে, তবে ভাষা অধিকারের একটি সাধারণ লড়াই এ ব্যবধান কমিয়ে দিয়েছে…।’

সাইফুজ্জামান চৌধুরী দেশে ফিরে এ প্রসঙ্গে বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, ইতিহাস-ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, উন্নয়ন অভিযাত্রা, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিসহ আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে গঠনমূলক ভূমিকা অন্যান্য দেশের দরবারে পৌঁছে দিতে তথা ইতিবাচক ভাবে ব্রান্ডিং করার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দেশের কিশোর ও তরুণরাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কেননা তারাই আগামীতে নিজ দেশে নেতৃত্ব দেবে। বিদেশে আমাদের ইতিবাচক ভাবমূর্তি বাড়াতে স্কুল-কলেজ কেন্দ্রিক জনকূটনীতি কার্যক্রম খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য স্কুল পরিদর্শনের আমন্ত্রণ পাবার সাথে সাথে আমি তা সাদরে গ্রহণ করি। স্কুলটির শিক্ষার্থীরা খুব মেধাবী ও দেশপ্রেমিক।

Leave a Reply