সুন্দরগঞ্জে পিআইও কর্তৃক হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে বন্দুকের ভয় দেখিয়ে বিল পাশ

সুন্দরগঞ্জে পিআইও কর্তৃক হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে বন্দুকের ভয় দেখিয়ে বিল পাশ

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নুরুন্নবী সরকার কর্তৃক হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে বন্দুকের ভয় দেখিয়ে ৬ কোটি ৬০ লাখ টাকার বিল স্বাক্ষর করে নেয়ার অভিযোগের আজও তদন্ত হয়নি। তথ্য নিতে নিতে গিয়ে তোপের মুখে পড়েন যমুনা টিভির জেলা প্রতিনিধি জিল্লুর রহমান পলাশ।
অভিযোগে জানা যায় গত ২৯ জুন প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) নুরুন্নবী সরকার ৩টি প্রকল্পের অগ্রিম বিল ও ১১টি প্রকল্পের ঠিকাদারী বিল হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার দপ্তরে দাখিল করেন। দাখিলকৃত বিলগুলোর বিপরীতে বিলবহি/বলভাউচার না থাকায় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আ. রাজ্জাক তা পাশ করতে অসম্মতি জানান।
এতে উক্ত পিআইও ক্ষিপ্ত হয়ে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজসহ বন্দুকের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক দাখিলকৃত বিলগুলো পাশ করে নেয়।
এ ব্যাপারে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা নিরুপায় হয়ে সুন্দরগঞ্জ থানায় জিডি করাসহ মহাপরিচালক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ দায়েরের ২ মাস অতিবাহিত হলেও কোন প্রকার তদন্ত ও বিভাগীয় ব্যবস্থা না নেয়ায় অভিযোগকারী হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা উৎকণ্ঠায় ভুগছেন।
এ নিয়ে গত ৫ সেপ্টেম্বর যমুনা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি জিল্লুর রহমান পলাশ পিআইওর কার্যালয়ে তথ্য জানতে চাইলে পিআইও নুরুন্নবী সরকার ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে চর থাপ্পর মারার চেষ্টা করেন।
এ নিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান যমুনা টিভির সাংবাদিক আমার রুমে ঢুকে আমার অনুমতি ছাড়াই ক্যামেরা চালু করায় আমি তাকে থাপ্পর মারি কিন্তু ভাগ্য ভালো যে থাপ্পরটি গালে না লেগে ক্যামেরায় লেগেছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোলেমান আলীর সাথে কথা হলে তিনি জানান মৌখিকভাবে লাঞ্চিতের বিষয়টি জানানো হয়েছে।

Leave a Reply