শেষ কার্যদিবসে ডিএমপি কমিশনার, সাফল্যের পাশাপাশি স্বীকার করলেন ২ ব্যর্থতা

শেষ কার্যদিবসে ডিএমপি কমিশনার, সাফল্যের পাশাপাশি স্বীকার করলেন ২ ব্যর্থতা

পুলিশে ৩২ বছর চাকরির শেষভাগে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হিসেবে প্রায় চার বছর সাত মাস কর্মমুখর সময় শেষে অবসর নিচ্ছেন আছাদুজ্জামান মিয়া। শেষ কর্মদিবসে নিজের কর্মজীবনের নানা সাফল্য তুলে ধরার পাশাপাশি দুটি ব্যর্থতাও তুলে ধরেছেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার শেষ কার্যদিবসে নিজের সাফল্য ও ব্যর্থতার কথা তুলে ধরলেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) এই বিদায়ী কমিশনার। ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি গণমাধ্যমকে এসব কথা জানান।

কর্মজীবনে দু’টি ব্যর্থতার কথাও জানালেন তিনি। এগুলো হচ্ছে জনগণ থানায় যে সেবা প্রত্যাশা করছে, অনেকাংশে তা পূরণে ব্যর্থতা ও যানজটমুক্ত গতিশীল ঢাকা গড়তে ব্যর্থতা।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ১৬৮০ দিনের কমিশনার থাকাকালীন দুই জায়গায় ব্যর্থতার আক্ষেপ রয়েছে। একটি হচ্ছে, জনগণ থানায় যে সেবা প্রত্যাশা করছে, অনেকাংশে তা পূরণে ব্যর্থ হয়েছি। এক্ষেত্রে আমরা অনেক উন্নতি করলেও, কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারিনি।

মহানগরী ঢাকার যানজট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা যে যানজটমুক্ত গতিশীল ঢাকার প্রত্যাশা করেছিলাম। কিন্তু সেটা করতে পারিনি।

তবে দায় স্বীকার করলেও যানজটের পেছনে আরো কিছু বিষয় জড়িত বলে জানান তিনি। বলেন, যানজটের দায় শুধু ডিএমপির নয়। ঢাকায় সিগন্যাল ব্যবস্থা একটি সংস্থা দেখভাল করে, পানি জমলে আরেক সংস্থা দেখে, সড়ক দেখে আরেক সংস্থা।

Leave a Reply