‘কেউ ধোনির সঙ্গে কথা বলুক’

‘কেউ ধোনির সঙ্গে কথা বলুক’

বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল কি মহেন্দ্র সিং ধোনির আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ ছিল? কেউ জানে না। কোনো ঘোষণাও আসেনি এই ব্যাপারে। ধোনি ও বিসিসিআই, উভয় পক্ষই এই ব্যাপারে আছে চুপ। এসব দেখে একটু চিন্তিত হয়ে পড়েছেন সাবেক ভারতীয় উইকেটরক্ষক ও প্রধান নির্বাচক কিরণ মোরে। ধোনির ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি, সেটা জানার জন্য বর্তমান নির্বাচক কমিটিকে তাগাদা দিয়েছেন তিনি।
বিশ্বকাপ শেষ। সাত সপ্তাহের কঠিন একটা টুর্নামেন্টের পর কোহলি, বুমরা, রোহিতরা এখন পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাচ্ছেন। কিন্তু নির্বাচকদের দম ফেলার সুযোগ কোথায়? আগস্টের শুরুতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে তিন ওয়ানডে, তিন টি-টোয়েন্টি ও দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে ক্যারিবিয়ানে যাচ্ছে ভারত দল। সে সফরে ভারতীয় দল কেমন হবে, সেটা নির্বাচন করার জন্য এখনই সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা নির্বাচক কমিটির। কিন্তু সাবেক উইকেটরক্ষক ও প্রধান নির্বাচক কিরণ মোরে মনে করেন, বর্তমান নির্বাচকদের উচিত ভবিষ্যতের দলটা এখন থেকেই তৈরি শুরু করে দেওয়া উচিত।

মোরের মনে করেন ভবিষ্যতের দল গঠন শুরু করলে আগামী বিশ্বকাপ আসার আগ পর্যন্ত সবাইকে পর্যাপ্ত সুযোগ করে দেওয়া হবে, ‘আপনারা সবাই জানেন, বিশ্বকাপে আমাদের খেলোয়াড়েরা কেমন খেলেছে। ওদের খেলা দেখে মোটামুটি সবাই বুঝতে পেরেছেন সামনের দুই বছরে আমাদের দলটার অবস্থা কেমন থাকবে, কে কে খেলবে। আমাদের উচিত এর মধ্যেই বিকল্প খেলোয়াড়দের নির্বাচন করে ফেলা এবং আগামী বিশ্বকাপ আসার আগ পর্যন্ত তাদের পর্যাপ্ত সুযোগ দেওয়া।’

বিশ্বকাপের পর ভারতীয় দল যাচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজে। কিন্তু এ সফরে কী মহেন্দ্র সিং ধোনি থাকবেন? ধোনি কি অবসরের ঘোষণা দিয়ে দেবেন? কেউই কিচ্ছু জানে না। ধোনি এখনো পর্যন্ত কাউকে কিছু বলেননি। মোরে এটি নিয়ে কিছুটা বিরক্তই। এ মুহূর্তে ধোনির ব্যাপারে ‘নিশ্চিত’ হওয়াটাকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন তিনি, ‘তবে এর মাঝেও আমাদের খেয়াল রাখতে হবে আগামী বিশ্বকাপের জন্য দল নির্বাচন করার প্রক্রিয়ায় কোনো খেলোয়াড় যেন নিজের অবস্থান নিয়ে শঙ্কায় না থাকে। ধোনির কথাই ধরুন। ওর মতো খেলোয়াড় সম্পর্কে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে ওর সঙ্গে কেউ কথা বলুন। ক্যারিয়ার সম্পর্কে ওর নিজের কী পরিকল্পনা সেটা জানার চেষ্টা করুন। আপনারা ভবিষ্যতের ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নিলেন সেটা ওকে জানিয়ে পরামর্শ করুন। যোগাযোগ রাখা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ওর সঙ্গে কেউ কথা বলুন।’

Leave a Reply