পাঁচ দিনের রিমান্ডে মিন্নি

পাঁচ দিনের রিমান্ডে মিন্নি

বরগুনায় আলোচিত রিফাত হত্যা মামলার গ্রেপ্তারকৃত এক নম্বর সাক্ষী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বরগুনা সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির আদালতের কাছে সাত দিনের রিমান্ড চাইলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. সিরাজুল ইসলাম গাজী পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আজ বিকেলে আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে মঙ্গলবার রাত ৯টায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

এর আগে ওই দিন সকাল ১০টার দিকে তাকে তার মাইঠা এলাকার বাসা থেকে পুলিশ লাইনসে নিয়ে আসা হয়। তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরও সে সময় তার সাথে ছিলেন। সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দীর্ঘ ১১ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

সারারাত মিন্নিকে কোথায় রাখা হয়েছে এমন এক প্রশ্নের জবাবে বরগুনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহাজাহান হোসেন জানান, আইনগত নিয়মকানুন মেনেই মিন্নিকে যথাস্থানে রাখা হয়েছে। আজ দুপুরের পর যেকোনো সময় তাকে আদালতে তোলা হবে বলেও জানান তিনি।

এর আগে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বরগুনার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন জানান, মামলার মূল রহস্য উদ্‌ঘাটন ও সুষ্ঠু তদন্তের জন্য মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে মিন্নিকে তার সদর উপজেলার দক্ষিণ মাইঠা এলাকার বাড়ি থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ লাইনসে আনা হয়। দিনব্যাপী জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এবং এর আগেও দীর্ঘ সময় যাবৎ প্রাপ্ত তথ্যাদি পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ করে এ হত্যাকাণ্ডের সাথে মিন্নির সংশ্লিষ্টতা প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়েছে। তাই মামলার মূল রহস্য উদ্‌ঘাটন এবং সুষ্ঠু তদন্তের জন্য আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে রাত ৯টায় গ্রেপ্তার করা হয়।

Leave a Reply