খুব বিপদে ফেলে দিয়েছিল হ্যাকাররা : ইমন

খুব বিপদে ফেলে দিয়েছিল হ্যাকাররা : ইমন

এর আগে ফেসবুক আইডি হ্যাক করেছিল একজন ভক্ত। সেই ভক্ত নিজেকে বন্ধু তালিকায় যুক্ত করে তারপর অ্যাকাউন্ট ফেরত দিয়েছিল চিত্রনায়ক মামনুন হাসান ইমনকে। কিন্তু এবার একজন পেশাদার হ্যাকার আমার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ফেলে। শুধু তাই নয়, দ্রুত সেই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট-এর নাম বদলে করা হয়, জামাল উদ্দিন। বলছিলেন ইমন। এ বিষয়ে কী করবেন? ভেবে পাচ্ছিলেন না। জানালেন, দ্বারস্থ হন সাইবার ক্রাইম ইউনিটের। পুলিশের এই বিভাগটি চেষ্টা করে আইডি ফেরত এনে দেয়। ইমন কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন সাইবার ক্রাইম ইউনিটের প্রতি।

ইমন বুধবার দুপুরে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট কেন হ্যাক হলো বুঝলাম না। আমার সাথে তো কারো শত্রুতা নেই। হ্যাক করে হয়তো আমাকে ব্ল্যাকমেইল করার মতো কিছু পায়নি। যার কারণে তালিকা থেকে সবাইকে আনফ্রেন্ড করে দিয়েছে। দেখি যে ফেসবুকের ফলোয়ার্সও কমে গেছে অনেক। পরে আমি আইডি ফেরত পেয়ে নামটা নিজের নামে নামকরণ করি। ১০-১২ দিন এটা নিয়ে বেশ ধকল গেছে।’

ইমন আরও বলেন, ‘আসলে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে যাওয়ার ফলে খুব বিপদে পড়ে গিয়েছিলাম। আমার অধিকাংশ মানুষের সাথে যোগাযোগ ছিল এই এই ফেসবুকের মাধ্যমে। ভারতের একটি সংস্থার সাথে কাজ করতাম, তাদের আর পাচ্ছি না। এমনকী আমার কাছে ফোন নম্বরও নেই। খুব বিপদে পড়ে গিয়েছি। এরকম বেশ কিছু জরুরি যোগাযোগের জায়গা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছি। সেসব রিকাভার করার চেষ্টা করছি।’

সকলকে সতর্কতা অবলম্বন করার আহবান জানিয়ে ইমন বলেন, ‘শুনলাম মোস্তফা কামাল রাজ ভাই, মাবরুর রশিদ বান্নাহ সহ অনেক শোবিজ জগতের মানুষের ফেসবুক হ্যাকড হচ্ছে। এরকম কেন হচ্ছে বুঝতে পারছি না। তবে সকলের এই বিষয়ে সতর্ক হওয়া দরকার। একটি চক্র সঙ্ঘবদ্ধ হয়ে হয়রানি করার জন্য এসব করে যাচ্ছে।’

গত ঈদুল ফিতরে মুক্তি পেয়েছে শাকিব খান ও মোহাম্মদ ইকবাল প্রযোজিত চলচ্চিত্র ‘পাসওয়ার্ড’। প্রযোজনার পাশাপাশি ছবিতে মূল চরিত্রে অভিনয় করেন শাকিব। তাঁর ছোট ভাইয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন নায়ক ইমন। এই ছবিতে ইমন নতুনভাবে আবির্ভূত হন। ইমনের অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে সর্বমহলে।

Leave a Reply