আসামে এসেই গণতন্ত্র বাঁচানোর ডাক প্রিয়াঙ্কার

আসামে এসেই গণতন্ত্র বাঁচানোর ডাক প্রিয়াঙ্কার

গণতন্ত্র বাঁচানোর ডাক দিলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র। আজ রোববার আসামের শিলচরে ভোটের প্রচারে এসে তিনি কংগ্রেস কর্মীদের বলেন, দেশ ও দেশের গণতন্ত্রকে বাঁচাতে সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে।

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের আগে আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেসে যোগ দেন ভারতের প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর নাতনি প্রিয়াঙ্কা। তাঁর ভাই রাহুল গান্ধী কংগ্রেসের সভাপতি। বোনকে তিনি সাধারণ সম্পাদক বানিয়ে দায়িত্ব দিয়েছেন ভারতের সবচেয়ে বড় রাজ্য উত্তর প্রদেশের। এবারের ভোটে উত্তর প্রদেশেই বেশি প্রচার চালাচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা। মাঝে অবশ্য কেরালায় ভাই রাহুল গান্ধীর মনোনয়নপত্র দাখিলে হাজির ছিলেন তিনি।

কিন্তু আজ প্রথম উত্তর প্রদেশের বাইরে প্রচারে এলেন প্রিয়াঙ্কা। আসামের বাঙালি অধ্যুষিত শিলচরে রোড শো করেন। এখানে সর্বভারতীয় কংগ্রেস সভানেত্রী সুস্মিতা দেবের হয়ে ভোটের প্রচার চালান। তাঁকে দেখতে শিলচরে প্রচুর মানুষ ভিড় করেন। হুডখোলা গাড়িতে গোটা শহর ঘুরে বেড়ান প্রিয়াঙ্কা। অনেকটা ঠাকুমা (দাদি) ইন্দিরার স্টাইলেই প্রচারে ঝড় তুললেন কংগ্রেস কর্মীদের এই হার্ট থ্রব।

প্রিয়াঙ্কার বাবা রাজীব গান্ধী ও মা সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে খুব ভালো সম্পর্ক ছিল শিলচরের প্রয়াত কংগ্রেস নেতা তথা বর্তমান প্রার্থীর বাবা সন্তোষমোহন দেবের। বহুদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও ছিলেন তিনি। সে কথাও এদিন স্মরণ করেন প্রিয়াঙ্কা।

কংগ্রেস কর্মীদের সঙ্গেও কথা বলতে দেখা যায় প্রিয়াঙ্কাকে। তিনি বলেন, ‘দেশের লোকতন্ত্রের (গণতন্ত্র) ওপর এত বড় আক্রমণ আগে কেউ করেননি। তাই লোকতন্ত্রকে বাঁচাতে, দেশকে বাঁচাতে সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে।’

প্রসঙ্গত, এই শিলচরেই চলতি বছরে দুবার সভা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কংগ্রেসকে কড়া ভাষায় আক্রমণও করেন তিনি। কিন্তু প্রিয়াঙ্কাকে প্রচারে পেয়ে উচ্ছ্বসিত কংগ্রেসের দাবি, তারাই ফের জিতছে শিলচরে।

স্থানীয় কংগ্রেস নেতা পার্যরঞ্জন চক্রবর্তী প্রথম আলোকে বলেন, ‘সুস্মিতা দেবের সমর্থনে এদিন প্রিয়াঙ্কার ভোট প্রচারে যত মানুষ অংশ নিয়েছেন তাতে স্পষ্ট, কংগ্রেস আরও বেশি ব্যবধানে এবার জিতবে। চৈত্রসংক্রান্তির ব্যস্ততা ভুলে মানুষ এদিন পথে নেমেছিলেন কংগ্রেসের হয়ে।’

Leave a Reply