শেষ মুহূর্তের গোলে আর্জেন্টিনাকে হারালো ব্রাজিল

শেষ মুহূর্তের গোলে আর্জেন্টিনাকে হারালো ব্রাজিল

সৌদি আরবের জেদ্দায় অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মিরান্ডার শেষ মুহূর্তের গোলে চির প্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাকে ১-০ গোলে পরাজিত করেছে ব্রাজিল।
নেইমারের কর্ণার থেকে ইনজুরি টাইমের তিন মিনিটে ইন্টার মিলানের এই সেন্টার-ব্যাক দারুন এক হেডে আর্জেন্টিনাকে পরাস্ত করেন। এর আগে পুরোটা সময়ই দুই দলের আক্রমন ও পাল্টা আক্রমনে মধ্য প্রাচ্যের সমর্থকরা প্রথমবার প্রিয় দুই দলের তারকাদের ম্যাচ সরাসরি মাঠে বসে উপভোগ করেছে।
যদিও ম্যাচটিতে আর্জেন্টিনাকে বেশ রক্ষনাত্মক কৌশল অবলম্বন করতে হয়েছে। কারন দীর্ঘ সময় ধরে ব্রাজিলই বেশী আক্রমন করেছে। ৩৪ বছর বয়সী মিরান্ডা ম্যাচ শেষে বলেছেন, ‘এই বয়সেও আমি প্রমান করেছি শারিরীক ভাবে এখনো আমি অনেক ফিট রয়েছি। অবশ্যই আমি জাতীয় দলের হয়ে আরো কিছুদিন খেলা চালিয়ে যেতে চাই। কারন এই জার্সি গায়ে আরো কিছু প্রমানের বাকি আছে।’
যদিও মিরান্ডার গোলের আগে ব্রাজিল বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করেছে। নেইমারের পাস থেকে ক্যাসেমিরোর ২৫গজ দুরের জোড়ালো শট আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরোর কল্যানে জালে প্রবেশ করেনি। শেষ মিনিটে রিচারলিসনের একটি প্রচেস্টাও ব্যর্থ হয়। আর্জেন্টিনার সবচেয়ে ভাল সুযোগটি তৈরী হয়েছিল ম্যাচের ৬০ মিনিটে। লিওনার্দো পারেডেসের ভলি ব্রাজিল গোলরক্ষক এ্যালিসনকে পরাস্ত করলেও জালের ঠিকানা খুঁজে পায়নি।
ম্যাচে যেখানে ম্যানচেস্টার সিটির গ্যাব্রিয়েল জেসুস, বার্সেলোনা ফিলিপ কুটিনহো, লিভারপুলের রবার্তো ফিরমিনোর পাশাপাশি নেইমারকে নিয়ে শক্তিশালী আক্রমনভাগ সাজিয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান কোচ তিতে, সেখানে আর্জেন্টাইন এ্যাটাক লিওনেল মেসির পাশাপাশি আরো কিছু তারকাদের অনুপস্থিতিতে বেশ দূর্বলই ছিল।
ব্রাজিলিয়ান ফুল-ব্যাক ফিলিপ লুইস বলেছেন, ‘আর্জেন্টিনার বিপক্ষে খেলাটা সবসময়ই কঠিন। কিন্তু আমাদের দল তাদের তুলনায় আজ ভাল ছিল। কারন দীর্ঘদিন ধরেই আমরা একই ভিত্তিতে দল গঠন করে চলেছি। অন্যদিকে আর্জেন্টিনা দলে আমূল পরিবর্তন আনার পর্যায়ে রয়েছে।’
কাল আর্জেন্টিনা দলে ছিলেন না ম্যানচেস্টার সিটির ইন-ফর্ম ফরোয়ার্ড সার্জিও আগুয়েরো, পিএসজি উইঙ্গার এ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া ও এসি মিলান স্ট্রাইকার গঞ্জালো হিগুয়েইন। গত চারটি প্রীতি ম্যাচেই দলের বাইরে রয়েছেন মেসি। রাশিয়া বিশ্বকাপে শেষ ১৬’ থেকে বিদায়ের পরপরই মেসি নিজেই কিছুদিন জাতীয় দল থেকে বাইরে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আগামী বছরের কোপা আমেরিকার আগে দলের বাইরে থেকে নিজেকে আবারো গুছিয়ে নেবার চেষ্টা করছেন এই সুপারস্টার।
এই নিয়ে ১০৫তম আন্তর্জাতিক ম্যাচে দক্ষিণ আমেরিকার এই দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বী মুখোমুখি হলো। এর মধ্যে ব্রাজিল জিতেছে ৪১টি, আর্জেন্টিনা ৩৮টি, ড্র হয়েছে ২৬টি ম্যাচ। দুই দল সর্বশেষ ২০১৭ সালের জুনে অস্ট্রেলিয়ায় এক প্রীতি ম্যাচে মোকাবেলা করেছিল। ম্যাচটিতে আর্জেন্টিনা জিতেছিল ১-০ গোলে। কিন্তু নভেম্বরে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল সেলেসাওরা

Leave a Reply