জিম্বাবুয়েকে নিয়ে সতর্ক তামিম

জিম্বাবুয়েকে নিয়ে সতর্ক তামিম

মুদ্রার এক পিঠ যদি হয় বাংলাদেশের টেস্ট-টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট অপর পিঠ ওয়ানডে ক্রিকেট। টেস্ট-টি-টোয়েন্টি আধারে ডাকা। ওয়ানডেতে সূর্যের উজ্জ্বল কিরণে বিচ্ছুরিত। দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশ দুই টেস্টের সিরিজে শোচণীয়ভাবে হারলেও ওয়ানডে ম্যাচ জিতেছিল ২-১ ব্যবধানে। আবার উইন্ডিজ সফরে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারলেও ওয়ানেড সিরিজ জিতেছিল ৩-০ ব্যবধানে। এবার জিম্বাবুয়ে সফরে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে ২-১ ব্যবধানে। এবার ওয়ানডে সিরিজের পালা। এই ওয়ানেড দিয়েই সুখের কাব্য রচনা করে থাকে বাংলাদেশ। এবারও তার ব্যতীক্রম হবে না। কিন্তু তাই বলে সাফল্য সহজে ধরে দেবে বলে মনে করেন না ওয়ানডে কাপ্তান তামিম ইকবাল। তিনি জিম্বাবুয়েকে নিয়ে সতর্ক। টি-টোয়েন্টি সিরিজে জিম্বাবুয়ে যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বাংলাদেশকে কাবু করেছে ওয়ানডে সিরিজেও তারা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে বলে মনে করেন তামিম ইকবাল। নিজেদের কন্ডিশনে জিম্বাবুয়ে বিপজ্জনক দল বলেও জানান তিনি। আজ হারারেতে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন,‘দুই দলের শক্তি বিচার করলে আমরাই এগিয়ে। তবে ক্রিকেটে নির্দিষ্ট দিনে যে দল ভালো খেলবে তারাই জিতবে। টি-টোয়েন্টিতে দেখেন, জিম্বাবুয়ে আমাদের চেয়ে ভালো খেলেছে বলেই তারা সিরিজ জিতেছে। এখানেও একই কথা। আমরা যদি ওদের হারাতে চাই, নিজেদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে। নিজেদের কন্ডিশনে জিম্বাবুয়ে বিপজ্জনক দল।’ তামিম ইকাবল জিম্বাবুয়েকে নিয়ে যতোই সতর্ক থাকুন না কেন ২০১৩ সালের পর বাংলাদেশ আর জিম্বাবুয়ের কাছে আর কোনো ম্যাচ হারেনি। এ সময় তারা খেলেছে ১৯টি ম্যাচ।

টি-টোয়েন্টি আর ওয়ানডে দলে খুব একটা পাথর্ক্য নেই বাংলাদেশের। ওয়ানডে দলে যুক্ত হয়েছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও তাইজুল ইসলাম। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচ ওয়ানডে দল থেকে গিয়ে যুক্ত হয়েছেন। ইনজুরির কারণে নেই নুরুল হাসান সোহানও। সাকিব আল হাসান আছেন ছুটিতে। দলে তাই তরুণদেরই আধিক্য। তিনি মনে করেন এই সিরিজ তরুণদের জন্য নিজেদের আসন পোক্ত করে নেওয়ার একটা ভালো সুযোগ। তামিম ইকবাল বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় দুই-তিনজন বাদে আমরা খুবই তরুণ একটা দল। দু–একটা জায়গা আছে, যেগুলো হয়তো এখনো পাকাপোক্ত হয়নি। এটা যেমন ১৫ জনের দলে, তেমনি সেরা একাদশেও। সেদিক থেকে বলতে গেলে প্রত্যেক তরুণ খেলোয়াড়ের জন্যই এটি একটি সুযোগ নিজেদের জায়গা পাকা-পোক্ত করে নেওয়ার।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের এই সিরিজ আইসিসির ওয়ানডে সুপার লিগের অংশ নয়। বাংলাদেশ গতবার জিম্বাবুয়ে সফরে গিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজই জিতে এসেছিল।

টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশ একটি ম্যাচও টস জিততে পারেনি। একই অবস্থা হয়েছিল উইন্ডিজ সফরে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতেও। শেষ টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ অবশ্য টস জিতেছিল। এরপর ওয়ানডে ম্যাচে আবার সব কটিতেই টস জিতেছিলেন তামিম ইকবাল। প্রতিবার জিতেই তিনি বোলিং বেছে নিয়েছিলেন। এবার অবশ্য তামিম ইকবাল টসকে গুরুত্বপূর্ণ ভাবলেও সব নয় বলে জানান। আর এখানে তার কোনো কিছু করারও নেই। তিনি বলেন,‘টস অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ম্যাচের সব কিছু নয়। টসের উপর কারো হাত নেই। না আমার হাতে আছে,না জিম্বাবুয়ের হাতে। টস জিতলে আমি খুশি। না জিততে পারলে সমস্যা নেই। উইকেট প্রথম এক ঘণ্টা অথবা দেড় ঘণ্টা একটু কঠিন হবে। এ ছাড়া উইকেট খুবই ভালো।’

খেলাধূলা শীর্ষ খবর