রোনালদোর উপরে ক্ষেপেছেন ম্যানইউ কোচ

রোনালদোর উপরে ক্ষেপেছেন ম্যানইউ কোচ

স্প্যানিশ ক্লাব রায়ো ভায়োকানোর বিপক্ষে খেলতে নেমেছিলেন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। ম্যাচটি যেহেতু প্রস্তুতিমূলক, এ কারণে কোচ প্রথমার্ধের স্কোয়াডে বেশ পরিবর্তন আনেন। প্রায় প্রতিটি দলের কোচরাই এমন করে যাচ্ছেন। ম্যানইউ কোচ এরিক টেন হাগও প্রথমার্ধে খেলা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে আর দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামাননি।

এটুকুতেই রাগ করে ফেলেছেন রোনালদো। দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে না নামানোয় রেফারির শেষ বাঁশি বাজার আগেই স্টেডিয়াম ছেড়ে যান তিনি। তিনি যে ম্যাচ চলাকালীন মাঠ ছেড়ে যাচ্ছেন সে ছবি ছড়িয়ে পড়েছে নেট মাধ্যমে। ম্যাচটিতে ১-১ গোলে ড্র করেছেন ম্যানইউ।

রোনালদোর এই ঘটনায় বেশ ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া দেখালেন কোচ এরিক টেন হাগ। তিনি সরাসরি জানিয়ে দিলেন, ‘এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য কোনো আচরণ নয়।’

শুধু রোনালদোই নয়, ম্যানইউর ফুটবলার দিয়েগো দালতকেও দেখা যায় ম্যাচ চলাকালীন মাঠ ছেড়ে যেতে। যদিও দালত ওইদিন স্কোয়াডে ছিলেন না। এমনকি তার ২৪ ঘণ্টা আগে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচেও ছিলেন না।

ক্যারিংটনে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে রোনালদোর ব্যাপারে তার কাছে জানতে চাওয়া হয়। এ নিয়ে টেন হাগ বলেন, ‘এটা কারো জন্য, কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য বিষয় নয়। আমি সবাইকেই বলেছি, এটা অগ্রহণযোগ্য। আমরা একটি দল। শেষ পর্যন্ত আমরা একসঙ্গেই থাকবো।’

এদিকে এক গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া টুইটারের সবচেয়ে বেশি বিদ্রুপের শিকার হন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো এবং ইংল্যান্ডের ফুটবলার হ্যারি মাগুইরে।

গবেষণা কর্মটি পরিচালনা করেছে অ্যালান টিউরিং ইনস্টিটিউট এবং অফকম। গত মৌসুমের প্রথম অংশে দেখা গেছে, ১২ হাজার ৫২০টি বর্ণবাদি টুইটের শিকার হয়েছেন রোনালদো। একই সময়ে হ্যারি মাগুইরে শিকার হয়েছেন ৮৯৫৪টি বর্ণবাদী টুইটের। তাদের কাছাকাছি ৬৪০০ বর্ণবাদী টুইটের শিকার হয়েছেন মার্কাস রাশফোর্ড।

খেলাধূলা শীর্ষ খবর