নতুন কারিকুলামে ধর্মীয় শিক্ষা বাদের বিষয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

নতুন কারিকুলামে ধর্মীয় শিক্ষা বাদের বিষয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, নতুন শিক্ষা কারিকুলামে ধর্মীয় শিক্ষা আবশ্যিক বিষয়; এটা আছে এবং আবশ্যিক বিষয় হিসেবেই থাকবে। এটি বাদ যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

আজ রোববার (৩ জুলাই) বিকেলে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে তিনদিনের আন্তর্জাতিক সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান, প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যা স্কুলের আয়োজনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব নিয়ে ওই সমাপনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মীয় শিক্ষা বাদ দেয়ার কথা বলে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। যারা এটিকে বাদ দেয়ার কথা বলছেন, তারা মূলত উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে শিক্ষক নির্যাতনের যে ঘটনাগুলো ঘটেছে এগুলো মনে হচ্ছে সবই পূর্বপরিকল্পিত। যারা এ দেশে ধর্মের নামে অপরাজনীতি করে আমাদের সমাজটাকে পিছিয়ে নেবার চেষ্টা করছেন; যারা আমাদের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করছেন; তারা আজকে মাঠ গরম করার অন্যায় চেষ্টা করছেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন। সেখানে চিফ প্যাট্রন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন এবং প্যাট্রন উপউপাচার্য প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসেন উপস্থিত ছিলেন। সমাপনী অনুষ্ঠানে ‘বেস্ট পেপার অ্যাওয়ার্ড, বেস্ট স্টুডেন্ট পেপার অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশ শীর্ষ খবর