ইউক্রেনে যুদ্ধে বৈশ্বিক মন্দার শঙ্কা বিশ্বব্যাংকের

ইউক্রেনে যুদ্ধে বৈশ্বিক মন্দার শঙ্কা বিশ্বব্যাংকের

ইউক্রেনে চলমান যুদ্ধের কারণে খাদ্য, জ্বালানি ও সারের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ায় বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিতে পারে বলে সতর্ক করেছেন বিশ্বব্যাংকের প্রধান ডেভিড ম্যালপাস।

ডেভিড ম্যালপাস বলেন, ‘বৈশ্বিক জিডিপির দিকে তাকানো হলে… মন্দা কিভাবে এড়াতে পারি তা দেখা এখনই কঠিন।’

তিনি বলেন, ‘জ্বালানির দাম দ্বিগুণ করার পরিকল্পনা নিজেই মন্দা শুরু করার জন্য যথেষ্ট।’

গত মাসে বিশ্বব্যাংক এই বছরের বৈশ্বিক আর্থিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস প্রায় ৩.২ শতাংশ কমিয়ে দেয়। জিডিপি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সূচক। এই হিসাব দিয়েই কোনও অর্থনীতি কতটা ভালো বা খারাপ চলছে তার হিসেব করা হয়। সেকারণে এর ওপর নিবিড় নজর রাখে অর্থনীতিবিদ ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলো।

বিশ্বব্যাংকের প্রধান ডেভিড ম্যালপাস বলেন, এখনও ইউরোপের অনেক দেশ রাশিয়ার তেল ও গ্যাসের প্রতি অতি নির্ভরশীল। পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমাতে চাপ অব্যাহত রাখারও পরও পরিস্থিতি বদলায়নি।

মার্কিন চেম্বার অব কমার্সের এক আয়োজনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে ডেভিড ম্যালপাস বলেন, রাশিয়া গ্যাস সরবরাহ কমিয়ে দেওয়ায় ওই অঞ্চলে ‘উল্লেখযোগ্য মন্দা’ হতে পারে। তিনি বলেন, জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি ইতোমধ্যে জার্মান অর্থনীতিকে চাপে ফেলেছে। অথচ তারাই ইউরোপের সবচেয়ে বড় এবং বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম অর্থনীতি।

বিশ্বব্যাংক প্রধান বলেন, উন্নয়নশীল দেশগুলোও আক্রান্ত হচ্ছে সার, খাদ্য ও জ্বালানি সংকটে। চীনের কয়েকটি বড় শহরে লকডাউন আরোপ নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন ডেভিড ম্যালপাস। তিনি বলেন, এর প্রভাব এখনো বিশ্বের মন্দার ওপর পড়ছে।
খবর বিবিসি

আন্তর্জাতিক শীর্ষ খবর