ইউক্রেন সীমান্তে উত্তেজনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করছে রাশিয়া

ইউক্রেন সীমান্তে উত্তেজনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করছে রাশিয়া

ইউক্রেন সীমান্তে উত্তেজনাবৃদ্ধির জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে রাশিয়া। ন্যাটো জোটে কয়েক হাজার সেনাকে সম্ভাব্য মোতায়েনের জন্য ওয়াশিংটনের প্রস্তুতির নির্দেশের পর মঙ্গলবার এই অভিযোগ করলো মস্কো।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশে প্রায় সাড়ে ৮ হাজার মার্কিন সেনাকে মোতায়েনের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। ইউক্রেনে সম্ভাব্য রাশিয়ান আক্রমণের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ পদক্ষেপ হিসেবেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন সরকার।

ইউক্রেনের উত্তর, পূর্ব ও দক্ষিণ সীমান্ত ঘিরে রাশিয়া প্রায় ১ লাখ সেনা মোতায়েনের পর চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমারা রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইউক্রেন দখলের পরিকল্পনার অভিযোগ এনেছে। মস্কো এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

মার্কিন সেনাদের প্রস্তুতির নির্দেশের পর মঙ্গলবার রুশ প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ জানান, এরই মধ্যে উত্তেজিত পরিস্থিতিকে আরও উত্তপ্ত করছে এই পদক্ষেপ।

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র উত্তেজনা বাড়াচ্ছে। গভীর উদ্বেগ নিয়ে আমরা যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপে নজর রাখছি।

এর আগে উত্তেজনার মধ্যেই কিয়েভে সামরিক সহায়তা পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন দূতাবাসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ২০ কোটি মার্কিন ডলারের নিরাপত্তা সহায়তার প্রথম চালান পৌঁছেছে ইউক্রেনে।

মার্কিন দূতাবাস শনিবার ফেসবুকে বিবৃতিতে জানিয়েছে, রুশ আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতা রক্ষার্থে দেশটির সশস্ত্র বাহিনীকে এই ধরনের সহায়তা যুক্তরাষ্ট্র ভবিষ্যতেও অবহ্যাত রাখবে।

এদিকে, বুধবার ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে মিলিত হচ্ছেন ইউক্রেন ও রাশিয়ার কর্মকর্তারা। সেখানে ফরাসি ও জার্মান কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাদের বৈঠকের কথা রয়েছে।
খবর এএফপি

আন্তর্জাতিক শীর্ষ খবর