শেষ দিকের গোলে হার এড়াল পিএসজি

শেষ দিকের গোলে হার এড়াল পিএসজি

আগের ম্যাচে পয়েন্ট হারানোর হতাশা কাটিয়ে উঠবে কী, উল্টো এবার লঁসের বিপক্ষে হারের শঙ্কা জাগে পিএসজি শিবিরে। তবে শেষ দিকের গোলে কোনোমতে পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ল মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল। প্রতিপক্ষের মাঠে শনিবার রাতে লিগ ওয়ানের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র করেছে প্যারিসের ক্লাবটি। গত রাউন্ডে ঘরের মাঠে নিসের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছিল তারা।

চলতি মৌসুমে লিগ ওয়ানে এই প্রথম টানা দুই ম্যাচে জয়হীন রইল পিএসজি। যদিও শীর্ষস্থান এখনো তাদের সংহতই।

চোটের কারণে বছরটাই শেষ হয়ে গেছে নেইমারের। তিনি তাই অনুমিতভাবেই দলে নেই। তবে প্রতিপক্ষের মাঠে শনিবার রাতে কিলিয়ান এমবাপেকে বেঞ্চে রেখে চমকে দেন পিএসজি কোচ। তিন স্বদেশি লিওনেল মেসি, আনহেল ডি মারিয়া আর মাউরো ইকার্দিকে নিয়ে আক্রমণ সাজান এই আর্জেন্টাইন কোচ।

তবে তাতে ক্ষতি ছাড়া লাভ হয়নি তেমন। আক্রমণ হয়েছে ভোঁতা, শেষমেশ সেই বেঞ্চে থাকা এমবাপের যোগানেই এসেছে পিএসজির গোল। মেসি অবশ্য কাছাকাছি গিয়েছিলেন, গোল করার, করানোর চেষ্টা কম করেননি। ১৮ মিনিটে তার শট ফেরে বারপোস্টে লেগে। বিরতির আগে তার বাড়ানো বলে দারুণ একটা সুযোগ পেয়েছিলেন ইকার্দি, লক্ষ্যে রাখতে পারলেই হয়তো গোলের দেখা পেয়ে যেত পিএসজি, কিন্তু তিনি তা পারলেন কই! মারলেন লক্ষ্যের অনেক বাইরে দিয়ে। তাতে হতাশাই সঙ্গী হয় পিএসজির, প্রথমার্ধের বাকি সময় যেমন হয়েছে।

তবে প্রথমার্ধটা আরও হতাশার হতে পারত দলটির। গোলমুখে বেশ ব্যস্ত সময় কাটাতে হয়েছে পিএসজি গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে। প্রথমার্ধেই সেভ দিয়েছেন কমপক্ষে চারটি। তাই গোলশূন্যভাবেই শেষ হয় ম্যাচের প্রথমার্ধ।

বিরতির পর সুযোগই তৈরি করতে পারছিল না পিএসজি। উল্টো গোল হজম করে বসে ৬৩ মিনিটে। সিকো ফোফানার শট প্রথমার্ধে দেয়াল তুলে দাঁড়ানো নাভাসের হাত ফসকে জড়ায় জালে। এই গোলের বিল্ড আপে মেসি ফাউলের শিকার হয়েছিলেন, তাই গোল বাতিলের জোরালো আবেদনই করেছিল পিএসজি। যদিও রেফারি তাতে কান দেননি মোটেও। প্রতিবাদের কারণে বরং হলুদ কার্ড দেখান পিএসজি মিডফিল্ডার মার্কো ভেরাত্তিকে।

এর পর গোলের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছিল না, তাই পিএসজির হারের শঙ্কাও বাড়ছিল পাল্লা দিয়ে। বদলি হিসেবে নামা এমবাপের বাড়ানো ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে শেষমেশ দলকে রক্ষা করেন আরেক বদলি জর্জিনিও ওয়াইনাল্ডাম। ১-১ ড্রয়ে বাধ্য হয় পিএসজি।

এই ড্রয়ের ফলেও অবশ্য পিএসজি আছে লিগের শীর্ষেই। ১৭ ম্যাচ শেষে ১৩ জয় আর তিন ড্রয়ে ৪২ পয়েন্ট অর্জন করেছে পচেত্তিনোর শিষ্যরা। দুইয়ে থাকা মার্শেইয়ের সংগ্রহ এক ম্যাচ কম খেলে ২৯ পয়েন্ট।

খেলাধূলা শীর্ষ খবর