টানা তিন কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

টানা তিন কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচক বেড়েছে। এর মধ্য দিয়ে টানা তিন কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী ধারায় থাকলো শেয়ারবাজার।

মূল্যসূচক বাড়ার পাশাপাশি উভয় বাজারে লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। তবে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ।

এদিন ডিএসইতে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার মাধ্যমে। ফলে লেনদেনের প্রথম ১০ মিনিটেই ডিএসইর প্রধান সূচক ৩০ পয়েন্ট বেড়ে যায়।

তবে লেনদেনের প্রথম দেড় ঘণ্টা পার হওয়ার পর বেশকিছু বড় মূলধনের কোম্পানির শেয়ার দাম কমে। এতে দুপুর ১২টার দিকে সূচক ঋণাত্মক হয়ে পড়ে। অবশ্য সূচকের এ ঋণাত্মক ধারা বেশি সময় স্থায়ী হয়নি। অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের দাম বাড়ার প্রবণতা অব্যাহত থাকায় সূচকের উত্থান দিয়েই দিনের লেনদেন শেষ হয়।

দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ২৯ পয়েন্ট বেড়ে ছয় হাজার ৯৬৫ পয়েন্টে উঠে এসেছে। এতে টানা তিন কার্যদিবসের উত্থানে ডিএসইর প্রধান সূচক বাড়লো ২৬২ পয়েন্ট।

অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ ২ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৪৬১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে দুই হাজার ৬৩৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

দিনভর ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৪৫ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৭৯টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৯টির দাম।

এদিন ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৮৯৪ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। আগের দিন মোট লেনদেনের পরিমাণ ছিল এক হাজার ২৪৫ কোটি ১৯ লাখ টাকা। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ৩৫০ কোটি ২১ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। এদিন কোম্পানিটির ১১৭ কোটি ৩০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ওয়ান ব্যাংকের ৩৮ কোটি ৮৭ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। ৩৩ কোটি ১৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক ব্যাংক।

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, পাওয়ার গ্রিড, ফরচুন সুজ, আইএফআইসি ব্যাংক, ওরিয়ন ফার্মা, সোনালী পেপার এবং একমি পেস্টিসাইড।

দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ১৬১ পয়েন্ট। বাজারটিতে মোট লেনদেন হয়েছে ৬৩ কোটি ৩২ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৯৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৯২টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৭৭টির এবং ২৬টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

অর্থ বাণিজ্য শীর্ষ খবর