‘দাঙ্গা লাগিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করাই ছিল তাদের উদ্দেশ্য’

‘দাঙ্গা লাগিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করাই ছিল তাদের উদ্দেশ্য’

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, দাঙ্গা লাগিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতেই কুমিল্লার মন্দিরে ‘উদ্দেশ্যমূলকভাবে’ কোরআন শরিফ রাখা হয়েছিল।

আজ রবিবার ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবসের অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘একটা ফ্রেশ কোরআন শরিফ সেখানে নিয়ে যাওয়া হলো। মন্দিরে কোরআন শরিফ কী করে গেল? কে নিয়ে গেল? উদ্দেশ্য একটাই, দাঙ্গা লাগিয়ে দেওয়া। এই দাঙ্গা লাগাতে পারলে সুবিধা হবে কী? দেশটা পিছিয়ে যাবে, দেশের অগ্রগতি সব বন্ধ হয়ে যাবে। আর বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে।’

হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজার মধ্যে গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লার একটি মন্দিরে ‘কোরআন পাওয়ার’ ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে উত্তেজনা তৈরি করা হয়। পরে বেশ কয়েকটি মন্দির ও মণ্ডপে হামলা-ভাঙচুর হয়। এর পর দেশের বিভিন্ন জেলায় মন্দিরে ও পূজা মণ্ডপে হামলা হয়। তা ঠেকাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে, চাঁদপুর ও নোয়াখালীতে প্রাণহানিও ঘটে।

হাত ধোয়া দিবসের অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ, বাংলাদেশে সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাটালি চুয়ার্ড, বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি ভেরা মেন্ডোনকা, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ শীর্ষ খবর