দেশের মাটিতেই বিশ্বমানের রোবট তৈরি হবে: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

দেশের মাটিতেই বিশ্বমানের রোবট তৈরি হবে: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, বাংলাদেশের মাটিতেই বিশ্বমানের রোবট তৈরি হবে। এ রোবট তৈরির মাধ্যমে রোবটিক্স ইন্ড্রাস্টিতে লাখ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হবে।

বৃহস্পতিবার রাতে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে ‘চতুর্থ বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড ২০২১’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক ড. মো. আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন লেখক ও শিক্ষাবিদ মুহম্মদ জাফর ইকবাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান, বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান।

জুনাইদ আহমেদ পলক আরো বলেন, বাংলাদেশে রোবট ম্যানুফেকচারিং এবং ডিজাইন হবে। বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা রোবট প্রোগ্রামিং পরিচালনা করে সারাবিশ্বে জ্ঞানভিত্তিক সেবা সরবরাহ করবে। ফলে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার আয় এবং নতুন কর্মসংস্থান হবে।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ নতুনকে ভয় না পেয়ে জয় করে বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে জ্ঞানভিত্তিক প্রযুক্তি নির্ভর ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। প্রোগ্রামিং শিখে কোডিং করে চালকবিহীন গাড়ি চালানো হচ্ছে।

ভবিষ্যতের জন্য সন্তানকে প্রস্তুত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, মাতৃভাষার মতোই কম্পিউটারের ভাষা কোডিং জানতে হবে। আগামী ২০২২ সাল থেকে প্রাথমিকে কোডিং শিক্ষা চালু করা হবে।

পলক বলেন, আমরা ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশ, ২০৩১ সালে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে চাই। বর্তমান ও ভবিষ্যত প্রজন্মের শিশু-কিশোরদের ভবিষ্যতমুখী প্রযুক্তিতে সক্ষম করে গড়ে তুলতে দেশে অত্যাধুনিক শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে।

ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডের সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স অ্যান্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. লাফিফা জামাল।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স অ্যান্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান ড.শামীম আহমেদ দেওয়ান।

বাংলাদেশ শীর্ষ খবর