সিরিজে সমতা এনেছে লংকানরা

সিরিজে সমতা এনেছে লংকানরা

তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টির দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে সিরিজে সমতা এনেছে শ্রীলঙ্কা। গতকাল রাতে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ১৩৩ রানের টার্গেটে দুই বল হাতে রেখে চার উইকেটে ম্যাচ জিতে নিয়েছে লঙ্কানরা।

শ্রীলঙ্কা সফরে বেশীরভাগ সিনিয়র ক্রিকেটাররা নেই ভারতীয় দলে। দ্বিতীয় সারির দল নিয়েই লঙ্কানদের কঠিন পরীক্ষা নিচ্ছে ভারত। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জেতার পর প্রথম টি–টোয়েন্টিও জিতেছিল তারা। তবে পরের ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় ম্যাচে সমতা ফিরিয়েছে তারা।

দ্বিতীয় ম্যাচের আগে অবশ্য করোনা হানা দিয়েছে ভারতীয় দলে। ম্যাচের আগে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় রিপোর্ট পজিটিভ আসে ক্রনাল পান্ডিয়ার। ফলে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল নির্ধারিত দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি। কুনাল পান্ডিয়ার করোনা ধরা পড়ার পর আইসোলেশনে চলে যেতে হয়েছে আরও ছয়জন ক্রিকেটারকে। দ্বিতীয় ম্যাচে তাই খেলতে পারেননি পৃথ্বী শ, সূর্যকুমার যাদব, ইশান কিষান ও হার্দিক পান্ডিয়া।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ভারতের স্কোরবোর্ডে সংগ্রহটা আশানুরূপ হয়নি। নির্ধারিত ২০ ওভারে পাচ উইকেট হারিয়ে ১৩২ রান তুলতে পেরেছে তারা। টপ অর্ডারের প্রথম তিন ব্যাটসম্যানের দৃঢ়তায় রান তোলার গতি সাবলীল থাকলেও, এরপর মিডল অর্ডারে হাল ধরতে পারেননি কেউই। ওপেনার গায়কোয়াড করেন ১৮ বলে ২১ রান। এছাড়া শিখর ধাওয়ান করেন সর্বোচ্চ ৪০ রান। আর দেবদূত পাডিক্কালের ব্যাট থেকে আসে ২৩ বলে ২৯ রান। লঙ্কান বোলারদের পক্ষে দুটি উইকেট নেন আকিলা ধনাঞ্জয়া। এছাড়া হাসারাঙ্গা ও শানাকা নেন একটি করে উইকেট।

১৩৩ রানের টর্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি লঙ্কানদেরও। দলীয় ১২ রানেই প্রথম উইকেট হারায় তারা। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে। ৬৬ রান তুলতেই টপঅর্ডারের চার উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। তবে বিপর্যয় সামাল দেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। অপরাজিত থেকে জয়ের বন্দরে ভেড়ান দলকে। একটি করে ছয় ও চারে ৩৪ বলে অপরাজিত থাকেন ৪০ রানে। এছাড়া ৩১ বলে ৩৬ রান করেছেন মিনোদ ভানুকা। ভারতের হয়ে কুলদীপ যাদব দুটি, বরুণ চক্রবর্তী এবং চাহার নেন একটি করে উইকেট। ম্যাচসেরা হয়েছেন লংকান ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা।

বাংলাদেশ শীর্ষ খবর