মাঠে নামলেই ইতিহাসের সাক্ষী হবেন মেসি

মাঠে নামলেই ইতিহাসের সাক্ষী হবেন মেসি

২০০৫ সালে আর্জেন্টিনার জার্সিতে অভিষেক। ১৬ বছরে অনেক চড়াই-উৎরাই দেখেছেন লিওনেল মেসি। দেশটির হয়ে এখনো বড় কোনও শিরোপা জেতা হয়নি। শিরোপার খুব কাছে গিয়েও ব্যর্থ হয়েছেন, হতাশায় পুড়েছেন, আবার নিজেকে সামলে দেশের জার্সি গায়ে নেমেছেন মাঠে। কোপা আমেরিকার ম্যাচে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোর ৬টায় প্যারাগুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা।

এ ম্যাচ খেলতে নেমে ইতিহাসে নাম তুলবেন মেসি। স্পর্শ করবেন আর্জেন্টিনার হয়ে সর্বাধিক ম্যাচ খেলা হাভিয়ের মাশ্চেরানোকে।

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার হয়ে নিজের শেষ ম্যাচ খেলেন মাশ্চেরানো। এরপর আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বলে দেন তিনি। তার আগে জানেত্তির ১৪২ ম্যাচ টপকে আর্জেন্টিনার হয়ে রেকর্ড ১৪৭টি ম্যাচ খেলার নজির গড়েন মাশ্চেরানো। ২০০৪ সালের আর্জেন্টিনার হয়ে অভিষেক ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি। তার ১৪ বছরের ক্যারিয়ার থামে ২০১৮ সালে।

মাশ্চেরানোর ১ বছর পর অর্থাৎ ২০০৫ সালের ১৭ অগস্ট বুদাপেস্টে হাঙ্গেরির বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার জার্সিতে নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামেন মেসি। সে দিনের সেই ঝাঁকড়া চুলের ছেলেটা আজ আর্জেন্টিনার অন্যতম সেরা ফুটবলার। যাকে ঘিরে দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ট্রফি জেতার স্বপ্ন দেখছে আলবিসেলেস্তেরা। মঙ্গলবার ভোরে প্যারাগুয়ের বিরুদ্ধে মেসি দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার নজির স্পর্শ করতে চলেছেন। ১৪৭টি ম্যাচ খেলে শীর্ষে রয়েছেন মাশ্চেরানো। তাকে স্পর্শ করবেন মেসি।

নিজের ক্লাব দল বার্সেলোনার হয়ে সম্ভাব্য সব শিরোপা জিতেছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর। তবে নিজ দেশের হয়ে এখনো বড় কোনও অর্জন নেয় তার। ৪টি বিশ্বকাপ এবং ৬টি কোপা আমেরিকা মেসিকে খালি হাতে ফিরিয়েছে। ২০১৪ বিশ্বকাপে হার। ২০১৫ এবং ২০১৬ কোপা আমেরিকায় পরপর দু’বার ফাইনালে হার। শেষবার তো কেঁদেই ফেলেছিলেন। আবার মেসিকে ঘিরেই স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছেন আর্জেন্টাইন সমর্থকরা।

খেলাধূলা শীর্ষ খবর