৫৩ জন নাবিকসহ নিখোঁজ ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিন

৫৩ জন নাবিকসহ নিখোঁজ ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিন

হঠাৎ করেই গভীর সমুদ্রে ৫৩ জন নাবিকসহ ইন্দোনেশিয়া নৌবাহিনীর একটি সাবমেরিন নিখোঁজ হয়েছে। বুধবার বালি দ্বীপের উত্তরে মহড়ার সময় সাবমেরিনটি নিখোঁজ হয়। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এমনটিই বলা হয়েছে।

সংবাদ মাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইন্দোনেশিয়ার সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, কেআরআই নানগালা-৪০২ নামের ওই সাবমেরিনের খোঁজে এরইমধ্যে যুদ্ধজাহাজ পাঠানো হয়েছে।

সাবমেরিনটি খুঁজতে প্রতিবেশী অস্ট্রেলিয়া ও সিঙ্গাপুরের কাছে সাহায্য চেয়েছে ইন্দোনেশিয়া। তবে এখনো দেশ দুটির পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

বুধবার সকালে জার্মানির তৈরি সাবমেরিনটি বালি উপকূল থেকে প্রায় ৬০ মাইল দূরে অবস্থানকালে নিয়ন্ত্রণকক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়।

ইন্দোনেশিয়া নৌবাহিনীর ফার্স্ট অ্যাডমিরাল জুলিয়াস উইদজোজোনো বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, এলাকাটা আমাদের পরিচিত। তবে গভীরতা অনেক বেশি। ইতিমধ্যেই নৌবাহিনী সাবমেরিনটির খুঁজতে তৎপরতা চালাচ্ছে।

খবরে আর বলা হচ্ছে, সাবমেরিনটিকে সাগরের গভীরে ডাইভ দেয়ার অনুমতি দেয়ার পর সেটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। দেশটিতে মোট সাবমেরিনের সংখ্যা ৫টি। নিখোঁজ সাবমেরিনটি এদের একটি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের তথ্যমতে, সাবমেরিনটি সত্তর দশকের দিকে তৈরি। বেশ কিছু জটিলতা থাকায় ২০১২ সালের আগে দক্ষিণ কোরিয়ায় দুই বছর ধরে এটি মেরামত করা হয়।

ইন্দোনেশিয়ার নৌবাহিনীর একজন মুখপাত্র বিবিসি বলেন, এই প্রথম ইন্দোনেশিয়ার কোনো সাবমেরিন নিখোঁজের ঘটনা ঘটল।

তবে সাবমেরনি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম নয়। ২০১৭ সালে আর্জেন্টিনার সেনাবাহিনীর একটি সাবমেরিন ৪৪ জন নাবিকসহ নিখোঁজ হয়। এক বছর পরে এর ধ্বংসাবশেষ পাওয়া যায়। কর্মকর্তারা ওই সাবমেরিনে বিস্ফোরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছিলেন।

আন্তর্জাতিক শীর্ষ খবর