এখনই লকডাউন শিথিলের পক্ষে নন জাস্টিন ট্রুডো

এখনই লকডাউন শিথিলের পক্ষে নন জাস্টিন ট্রুডো

এখনই লকডাউন শিথিল করা হলে তা বিপদজনক হতে পারে বলে মনে করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। আর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জেই ইন বলেছেন, করোনার প্রভাব থাকতে পারে দীর্ঘদিন এবং যেকোনো সময় তা আবারো বিপদজনক আকার নিতে পারে। এমন সতর্কতার মধ্যেই জার্মানি ও ব্রাজিলে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেছেন হাজারখানেক মানুষ।

অর্থনীতিকে বাঁচাতে পাশের দেশ যুক্তরাষ্ট্র যখন লকডাউন শিথিল করার পক্ষে, তখন করোনা সংক্রমণ নিয়ে সর্বোচ্চ সতর্ক কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। দেশটিতে করোনায় মৃত্যুর হার সাড়ে ৩ শতাংশ বাড়ার একদিন পরই সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, এখনই লকডাউন শিথিল করলে পরিস্থিতি সামলানো কঠিন হবে।  

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেন, অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। কিন্তু এখন ঘরে থেকে কীভাবে সংক্রমণ এড়াতে পারি সেদিকে নজর দিতে হবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জেই ইন-ও বলছেন একই কথা। রবিবার দেশটিতে নতুন কোরে ৩৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়, যা গত এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ। মুন বলছেন,  ভ্যাকসিন না আসা পর্যন্ত সবাইকেই জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে।  

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জেই ইন বলেন, আমরা এই সংকট কাটিয়ে ওঠার পরেও সতর্ক থাকতে হবে একেবারে শেষ পর্যন্ত। কারণ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেকোনো সময় এটা আবার ফিরতে পারে। যেকোনো জনসমাগম থেকে এটা বড় আকার ধারণ করতে পারে।

এদিকে, করোনা সংকটের সাথে যখন লড়ছে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ তখন স্বাভাবিক হয়েছে উঠছে ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল উহানের জীবনযাত্রা।  চীনের হুবেই প্রদেশের এই শহরে বিভিন্ন পণ্যের বিক্রি বাড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে চালানো হচ্ছে প্রচারণা।  আয়োজন করা হচ্ছে লাইভ অনুষ্ঠানের, যেখানে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা নিজেদের পন্য প্রদর্শন করতে পারছেন।

উহান ইস্ট লেক হাইটেক ডেভেলপমেন্ট জোনের বিনিয়োগ প্রচারণা বিভাগ কুইন জিন বলেন, অনলাইন এবং অফলাইন দুই ক্ষেত্রেই আমরা সরাসরি প্রচারণার আয়োজন করেছি যাতে বিক্রেতারা সহজেই ক্রেতা খুঁজে নিতে পারেন। আরো বড় আঙ্গিকে এটা করার জন্য ভবিষ্যতে একটা লাইভ স্ট্রিমিং সেন্টার স্থাপনের পরিকল্পনা করছি আমরা। 

উহানে টানা ৭৬ দিন লকডাউন চলার পর ৮ এপ্রিল থেকে খুলে দেয়া হয় সবকিছু।

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসেও ন্যাশনাল পার্ক খুলেছে। হাইকিং ট্রেলে আবারো শুরু হয়েছে মানুষের চলাচল। সরগরম হয়ে উঠতে শুরু করেছে মেরিল্যান্ডের ওশান সিটিও। সৈকত খুলে দেয়া হয়েছে। তবে সেখানকার জিম আর অ্যামিউজমেন্ট পার্ক বন্ধ আছে এখনো।  রেস্টুরেন্ট থেকে খাবার কেনা গেলেও সেটা একসাথে বসে খাওয়ার অনুমতি মেলেনি এখনো।
 
এদিকে, জার্মানিতে বিধি নিষেধ আরো শিথিল করার দাবিতে  স্টুটগার্ড ও বার্লিনে বিক্ষোভ করেছে হাজার হাজার মানুষ।

আন্তর্জাতিক