করোনায় দুই দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে সৌদি আরবের রিজার্ভ

করোনায় দুই দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে সৌদি আরবের রিজার্ভ

করোনায় দুই দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমেছে সৌদি আরবের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। গত মার্চে এই রিজার্ভ কমে যাওয়ার গতি দুই দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছায়। করোনা পরিস্থিতিতে তেল বিক্রির পরিমাণ কমে যাওয়ায় অর্থ বছরের প্রথম চার মাসেই দেশটির বাজেট ঘাটতি নয়শো কোটি মার্কিন ডলারে পৌঁছেছে। ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনের বরাতে এ খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম ইকোনমিক টাইমস।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় তেল রফতানিকারক দেশ সৌদি আরব। করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে বর্তমানে তেলের মূল্য ঐতিহাসিকভাবে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমে এসেছে। ফলে ২০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমেছে দেশটির বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। তেলের মূল্য কমে যাওয়ায় দেশটির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের অর্থনৈতিক সংস্কার পরিকল্পনার আকার ও গতি কমিয়ে আনতে হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার রাতে সৌদি আরবের মুদ্রা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বৈদেশিক সম্পদের মোট পরিমাণ মার্চ মাসে ৪৬ হাজার চারশো কোটি মার্কিন ডলারে নেমে এসেছে। এই সম্পদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশে জমা রাখা সম্পদও রয়েছে। গত ২০ বছরের মধ্যে এটাই সর্বনিম্ন সৌদি সম্পদ।

গত দুই দশকের মধ্যে এক মাসে সবচেয়ে বেশি প্রায় দুই হাজার সাতশো কোটি ডলারের সম্পদ কমেছে সৌদি আরবের। গত সপ্তাহে সৌদি আরবের অর্থমন্ত্রী মোহাম্মদ আল জাদান বলেন, এই বছর রিজার্ভ থেকে সর্বোচ্চ তিন হাজার দুইশো কোটি ডলার তোলা হবে।

উল্লেখ্য, সৌদি আরবে এখন পর্যন্ত ২০ হাজারের বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৫২ জনের। মহামারির কারণে এবারে দেশটির বাজেট ঘাটতি পাঁচ হাজার কোটি ডলারে পৌঁছাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্র- ইকোনমিক টাইমস।

আন্তর্জাতিক