সৌদি প্রকল্পের জমি না দেয়ার শাস্তি-একটি গুলি ও সন্ত্রাসী আখ্যা!

সৌদি প্রকল্পের জমি না দেয়ার শাস্তি-একটি গুলি ও সন্ত্রাসী আখ্যা!

সৌদি আরবের নাগরিক আবদুল রহিম আল-হাইয়েটি নামের এক ব্যক্তিকে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা গুলি করে হত্যা করেছে। বলা হচ্ছে, সরকারি আদেশ অমান্য করে রেডসি মেগা প্রকল্পের জন্য নিজের জায়গা ছেড়ে না দেওয়ায় তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

তবে বুধবার সৌদি আরবের এক টিভির খবরে বলা, থাবুক প্রদেশ থেকে আসা আবদুল রহিম আল-হাইয়েটি একজন শীর্ষ সন্ত্রাসী ছিল। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে গোলাগুলিতে মারা গেছে রহিম। বলা হয়, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের দেখে এক বাড়ির উপর থেকে গুলি চালাতে শুরু করলে তারও গুলি চালায়। এতে রহিম মারা যায়। কিন্তু আসল ঘটনা অন্যরকম। তাকে সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে সৌদি সরকার গুলি করে হত্যা করেছে। এমনটা দাবি করছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।

সোমবার দেশটির উত্তর-পশ্চিম লোহিত সাগর অঞ্চলের খ্রেবাহ শহর থেকে সৌদি নাগরিক আবদুল রহিম আল-হাইয়েটি নিজের একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। সেখানে তিনি দাবি করছেন, অন্যান্য নাগরিকদের তাদের সম্পত্তি সৌদি সরকারকে দিয়ে দেওয়ার আদেশ দেওয়া হয়। সেই সঙ্গে আর্থিক ক্ষতিপূরণ নেওয়ার জন্যও বলা হয়। 

তিনি বলেন, সরকারি আদেশ যিনিই অমান্য করেছেন তাকেই গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। সরকার তাদের জোর করে বাড়ি-ঘর থেকে তাড়িয়ে দিচ্ছে। তিনি বলেন, এটা আমার বাড়ি। আমি এই বাড়ি ছেড়ে অন্য কোথাও যাব না। এলাকার বাসিন্দারা এই এলাকা ছেড়ে যেতে চান না। কিন্তু তারা চরম ভয়ে রয়েছেন। কারণ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা খারাপ কিছু করতে পারে।

আল-হাওয়াইটি বলেন, সরকারি আদেশ অমান্য করায় নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমি নিশ্চিত এরপর আমাকে গ্রেপ্তার করা হবে। কিংবা আমাকে হত্যা করা হবে। আর তারা যদি আমাকে হত্যা করে তাহলে আমার দেহের চারপাশে অস্ত্র রেখে দাবি করবে আমি একজন সন্ত্রাসী।

সৌদি আরবের সংস্কারকর্মীদের মতে, আল-হাওয়াটি তার সম্পত্তি নিয়ে ভিডিও প্রকাশ করার পরই তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। সৌদি সরকার তার হত্যা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

সূত্র: মিডিল ইস্ট ওভজারবার।

আন্তর্জাতিক