ফেনীতে ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা, বিভিন্ন সংগঠনের বিচার দাবি

ফেনীতে ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা, বিভিন্ন সংগঠনের বিচার দাবি

ফেনীতে ফেসবুকে লাইভে এসে স্বামী টুটুল কর্তৃক স্ত্রী তাহমিনাকে কুপিয়ে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বলেছেন, বর্বরোচিত ও নৃশংস এ ঘটনা সামাজিক অনাচার ও মূল্যবোধের চূড়ান্ত অবক্ষয়েরই বহিঃপ্রকাশ। নৃশংসতা বন্ধে ওই ঘটনার ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এই দাবি করা হয়। শ্রমজীবী নারী মৈত্রীর সভাপতি বহ্নিশিখা জামালী ও সাধারণ সম্পাদক রাশিদা বেগম এক বিবৃতিতে ঘাতক স্বামী টুটুলসহ তাহমিনা হত্যাকাণ্ডের ইন্ধনদাতাদের শাস্তির দাবি জানিয়ে বলেছেন, করোনা সংক্রমণজনিত লকডাউন চলাকালে সারাদেশে পারিবারিক সহিংসতাও বৃদ্ধি পেয়েছে। এসব পারিবারিক সহিংসতায় বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে আক্রান্ত হচ্ছে নারীরা। করোনা দুর্গত পরিবারের আর্থিক নিশ্চয়তার বিধান না হলে এ ধরনের সহিংসতা আরো বেড়ে যাওয়ার শঙ্কা দেখা দেবে বলে আশংকা প্রকাশ করা হয়েছে।

অপর এক বিবৃতিতে সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সভাপতি রওশন আরা রুশো ও সাধারণ সম্পাদক শম্পা বসু স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যাকারী যুবকের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে বলেছেন, সারা দেশে নারী নির্যাতন বেড়েই চলেছে। ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে নারী নির্যাতন দ্বিগুণ হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার মধ্য দিয়ে ২০২০ সাল শুরু হয়েছে। এখন করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সাধারণ ছুটির সময় চরম ভাবে নারী নির্যাতন বেড়েছে। ফেনীর গৃহবধূ খুনের তারই বহিঃপ্রকাশ।

এছাড়া বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী)’র সভাপতি নূরুল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ এক বিবৃতিতে ফেনী হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ