যুক্তরাষ্ট্রে বালকের পিটুনিতে শিশুর মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রে বালকের পিটুনিতে শিশুর মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রে আট বছরের এক বালকের পিটুনিতে এক বছরের একটি মেয়ে শিশু মারা গেছে। 7শিশুটির কান্না থামানোর জন্য বালকটি তাকে পেটাতে শুরু করে। পেটাতে পেটাতে শিশুটি শেষ পর্যন্ত মারাই যায়। এ সময় শিশুটির মা নাইটক্লাবের এক পার্টিতে ছিল।
বালকটির বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। বুধবার পুলিশ একথা জানিয়েছে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
গত মাসে অ্যালাবামার বার্মিংহামের ওই বাড়িতে বেশ কয়েকটি শিশুকে তাদের অভিভাবকরা কয়েক ঘন্টার জন্য একা রেখে চলে যায়। ওই বালকটিও তাদের মধ্যে ছিল।
এত অল্প বয়সী কোন শিশুর বিচারের ঘটনা খুবই বিরল বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন।
বার্মিংহাম পুলিশের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট সেয়ান এডওয়ার্ড বলেন, ‘২২ বছরের বেশি সময় ধরে আমি পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। আমার চাকরির এ দীর্ঘ সময়ে এই ঘটনার মতো দুঃখজনক কোন মামলা আমি প্রত্যক্ষ করিনি।’
শিশুটির মায়ের এক বন্ধুর বাড়িতেই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। শিশুটির মায়ের নাম ক্যাটেরা লিউইস (২৬)।
তার বিরুদ্ধেও নরহত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। এডওয়ার্ড তার আচরণকে ‘বেপরোয়া’ আখ্যায়িত করেছেন।
পুলিশ জানায়, লিউইস তার এক বছরের মেয়ে কেলসিকে আরো কয়েকটি শিশুর সঙ্গে ওই বাড়িতে রেখে তার বন্ধুর সঙ্গে নাইটক্লাবের পার্টিতে যায়। ওই শিশুদের বয়স ছিল ২ বছর থেকে ৮ বছর।
স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, ওই বাড়িতে মোট ৬ জন শিশু ছিল। লিউইস ও তার বন্ধু রাত ১১ থেকে রাত ২টা পর্যন্ত বাড়িতে বড় কাউকে শিশুদের দেখভালের দায়িত্ব না দিয়ে চলে যায়।
পুলিশ এক বিবৃতিতে জানায়, ‘এক বছরের শিশুটির কান্না থামানোর জন্য ৮ বছরের ওই বালকটি তাকে প্রচন্ড মারধর করে।’
বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘শিশুটির মাথা ও অন্যান্য অঙ্গে মারাত্মক আঘাত লাগার কারণে এগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং শিশুটি মারা যায়।’
লিউইস সম্পর্কে এডওয়ার্ড বলেন, ‘এটা ধরনের আচরণ দায়িত্বহীনতার পর্যায়ে পড়ে। কোন মায়ের কাছ থেকে এ ধরনের আচরণ একেবারেই অগ্রহণযোগ্য।’
শিশুর মাকে ১৫ হাজার মার্কিন ডলারের বিনিময়ে জামিন দেয়া হয়েছে। সুত্র: বাসস

Featured আন্তর্জাতিক