রুনির গোলে ম্যানইউ শীর্ষে

রুনির গোলে ম্যানইউ শীর্ষে

প্রস্তুতই ছিলেন ওয়েন রুনি। উড়ে আসা বলটায় মাথা ছোঁয়ালেন। বল জড়ালো জালে। নার্ভাস 23হয়ে ওঠা ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বিস্ফোরণ। উদযাপনে আনন্দ আকাশ ছোঁয়। ৭৯ মিনিটে রুনির করা ওই গোলেই ১-০ গোলের জয় পায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ ‘বি’র ম্যাচে সিএসকেএ মস্কোকে হারিয়ে গ্রুপে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানটি ম্যানইউর।
বিপদ বেশ কয়েকবার স্পর্শ দিয়ে গেছে ম্যানচেস্টারকে। দাভিদ দি গিয়া চমৎকার সেভ করেছেন। ক্রিস স্মলিং গোল লাইন থেকে বল বাঁচিয়েছেন। তাতে বেঁচেছে দল। নইলে উৎসব করতে পারতো মস্কোও। রুনির এক হেডেই পুরো পয়েন্ট পেলো রেড ডেভিলসরা। টানা তিনটি ড্রর পর জয়ের দেখা পেল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ৪০৪ মিনিট পর পেলো গোলের দেখা।
এখনো গ্রুপ পর্বে দুই ম্যাচ বাকি। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ স্থানটি ম্যানইউর দখলে। ওল্ফসবার্গ ছিল শীর্ষে। কিন্তু পিএসভি আইন্দহোফেনের কাছে একই রাতে ২-০ গোলে হেরেছে তারা। ৭ পয়েন্ট ম্যানইউর। ৬ পয়েন্ট পিএসভির। ওল্ফসবার্গও ৬ পয়েন্টের মালিক।
এই রাতে রুনির পাশে অ্যান্থনি মার্শালকে দিয়েছিলেন কোচ লুই ফন হাল। তারা জুটি বেধে ভালো আক্রমণ করেছেন। দ্বিতীয়ার্ধে মারুয়ানে ফেলাইনিকে নামানোয় আক্রমণের ধার বেড়েছে আরো। তারপরও দর্শকদের দুয়ো ধ্বনি শুনেছেন ম্যানেজার।
মার্শালকে পাশে পেয়ে খেলাটা আরও শাণিত করেছেন রুনি। ফুল ব্যাক মার্কোস রোহো এদিন নিচে থেকে আক্রমণ তৈরি করে দিয়েছেন চমৎকারভাবে। বাঁ প্রান্ত থেকে অনেকগুলো ক্রস পাঠিয়েছেন। তাতে প্রতিপক্ষের ওপর হুমকি হয়েছে বেশ। কিন্তু দর্শকের চাহিদার শেষ নেই। তারা আরো আক্রমণ চায়। রুনির গোলে তাদের চাহিদা কিছুটা মিটলেও পুরো মেটেনি।

Featured খেলাধূলা